আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 57 মিনিট আগে

আগামী বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে তফসিল ঘোষণা, নতুন রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন, ভোটার তালিকা প্রস্তুত, ডিজিটাল ভোটিং মেশিনসহ নির্বাচনী মালামাল সংগ্রহ করতে প্রয়োজনীয় সব ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন।

election commission bangladesh

২০১৮ সালের সেই নির্বাচনের আগে শুধুমাত্র বহুল আলোচিত আইন সংস্কারের বিষয়টি নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপের বিষয়টি চিন্তা করেছে নির্বাচন কমিশন। ইসি সূত্র জানায়, ১৮ সালের ২৮ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার একাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণের প্রাথমিক তারিখ হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে। এজন্য ৪৫ দিন হাতে রেখে ওই বছরের ১৫ নভেম্বর তফসিল দেওয়া হতে পারে।

নির্বাচনকে ঘিরে নির্বাচনী রোডম্যাপও ২৩ মে নির্বাচন কমিশনের আনুষ্ঠানিক সভায় চূড়ান্ত করার কথা রয়েছে। ২০১৮ সালের আগস্টের মধ্যে নির্বাচনের জন্য সব ধরনের কাজ শেষ করার পরিকল্পনা থাকবে রোডম্যাপে। নির্বাচন ঘিরে ভোটের মাঠও গুছিয়ে নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন।

জানা গেছে, ঈদের পরপরই নির্বাচন কমিশন ভোটার তালিকা তৈরি, নির্বাচনী আইন সংস্কার, রাজনৈতিক দলসহ সুশীলসমাজ, গণমাধ্যম ও এনজিওগুলোর সঙ্গে সংলাপ, নির্বাচনী সীমানা নির্ধারণ, নতুন দলের নিবন্ধন, নির্বাচনে ব্যবহার হবে এমন ডিজিটাল মেশিন বা ডিভিএম-ইভিএম প্রস্তুত করার ব্যাপক কর্মযজ্ঞ শুরু করবে ইসি।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা গণমাধ্যমকে বলেন, '২০১৮ সালের ডিসেম্বরেই একাদশ সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিষয়টি পরিকল্পনায় রয়েছে। আমরা সকল দলকে নিয়ে একাদশ সংসদ নির্বাচন করতে চাই। নির্বাচনের রোডম্যাপ ২৩ মে চূড়ান্ত হবে। আমরা অনেক সাকসেসফুল নির্বাচন নির্বাচন করলাম। একাদশ সংসদ নির্বাচনও সকলের অংশ গ্রহণে সাকসেস করতে চাই। সেই লক্ষ্যেই এগিয়ে যাচ্ছি।'

Add comment

Security code
Refresh


advertisement