আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 11 মিনিট আগে

নির্বাচন কমিশনের কাছে আরও ৭৬টি রাজনৈতিক দল নিবন্ধনের আবেদন করেছে। এছাড়া আরও ১৫টি দল তাদের প্রস্তুতি জন্য নির্বাচন কমিশনের দেয়া সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন করেছিল। নির্বাচন কমিশন আবেদনের সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন গ্রহণ করেনি। ফলে আবেদন করা ৭৬টি দল থেকে এবার নতুন নিবন্ধনের জন্য দল বাছাই করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ec bangladesh

নতুন দলের নিবন্ধনের জন্য আবেদন করা দলগুলোর মধ্যে অন্যতম দল হলো মাহমুদুর রহমানের নাগরিক ঐক্য ও জোনায়েদ সাকির গণসংহতি আন্দোলন। এছাড়াও ২০ দলীয় জোটের জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম, বাংলাদেশ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-বাংলাদেশ বাসদ ও বাংলাদেশ লেবার পার্টিসহ বিভিন্ন দল রয়েছে। এছাড়াও অপরিচিত অনেক নেতার নামে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ব্যানারে নিবন্ধনের আবেদন করা হয়েছে। 

এছাড়াও বাংলাদেশ কৃষক শ্রমিক আওয়ামী লীগ (বাকশাল), বাংলাদেশ পরিবহন লেবার পার্টি, নাকফুল বাংলাদেশ, বাংলাদেশ হিন্দু লীগ, বাংলাদেশ রামকৃষ্ণ পার্টি ইত্যাদি নামে নতুন নিবন্ধন চাওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, ‘৭৬টি দল আবেদন করেছে। আরও ১৫টি দল জমা দেয়ার জন্য সময় বাড়ানোর আবেদন করেছিল। কিন্তু সময় বাড়ানো হবে না।’

তিনি বলেন, ‘আবেদন যাচাই-বাছাইয়ের জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা যাচাই করে দেখবেন আবেদনকারী দলগুলো নিবন্ধন শর্ত পূরণ করেছে কিনা। প্রয়োজনে মাঠপর্যায়ে তদন্ত করা হবে।’

নতুন নিবন্ধিত দলগুলো আগামী নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে জানিয়ে ইসি সচিব বলেন, ‘যাচাই-বাছাইয়ে যাদের আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে, তাদের নাম কমিশনে সুপারিশ করা হবে। কমিশন এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।’

এ সময় নিবন্ধিত দলগুলোকে সতর্ক করে তিনি আরও বলেন, নিবন্ধিত ৪০ দল তাদের নিবন্ধন শর্ত পূরণ করছে কিনা তারও খোঁজ-খবর নেয়া হবে। যারা শর্ত পূরণ করতে ব্যর্থ হবে তাদের নিবন্ধত বাতিল করা হবে।

নির্বাচক কমিশন সূত্র জানায়, ২০০৮ সালে রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন পদ্ধতি চালুর পর এ পর্যন্ত ৪২টি দল নিবন্ধিত হয়েছে। এর মধ্যে স্থায়ী সংশোধিত গঠনতন্ত্র দিতে না পারায় ২০০৯ সালে ফ্রিডম পার্টির নিবন্ধন বাতিল করে ইসি। আর হাইকোর্টের আদেশে ২০১৩ সালে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন অবৈধ হয়। তাদের নিবন্ধনের বিষয়টি সুপ্রিমকোর্টে বিচারাধীন রয়েছে।

নতুন যারা আবেদন করেছে: নিবন্ধনের জন্য আবেদন করা ৭৬টি দল হলো- মাহমুদুর রহমানের নাগরিক ঐক্য, জোনায়েদ সাকির গণসংহতি আন্দোলন, বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক আন্দোলন (বিডিএম), বাংলদেশ আলোকিত পার্টি, বাংলাদেশ সমাধান ঐক্য পার্টি, বাংলাদেশ কর্মসংস্থান আন্দোলন, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ-ভাসানী গ্রপ), বাংলাদেশ মঙ্গল পার্টি, বাংলাদেশ পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টি (বিপিডিপি), বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক দল (বিজিপি), জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম,বাংলাদেশ লেবার পার্টি ও নেজামে ইসলাম পার্টি, বাংলাদেশ কৃষক শ্রমিক আওয়ামী লীগ (বাকশাল), বাংলাদেশ জনতা পার্টি, বাংলাদেশ ইসলামিক গাজী, বাংলাদেশ জালালী পার্টি, বাংলাদেশ রিপাবলিকান পার্টি ( মো. রফিকুল ইসলাম), বাংলাদেশ রিপাবলিকান পার্টি (আবু হানিফ হৃদয়), ইনসানিয়া ইসলাম, বাংলাদেশ, বাংলাদেশ জাতীয় দল, জাতীয় পরিবার কল্যাণ পার্টি (জেপিকেপি), নতুন ধারা বাংলাদেশ (এনডিবি), বাংলাদেশ জাতীয় লীগ, সাধারণ জনতা পার্টি, বাংলাদেশ ফরায়েজী আন্দোলন, বাংলাদেশ তৃণমূল কংগ্রেস, ঐক্য ন্যাপ, বাংলাদেশ লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (বিপিএলডিটি), মুক্তিযোদ্ধা কমিউনিজম ডেমোক্রেটিক পার্টি, বাংলাদেশ গণ আজাদী লীগ, বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টি, বাংলাদেশ শান্তির দল, কৃষক শ্রমিক পার্টি, জনস্বার্থে বাংলাদেশ, বাংলাদেশ তৃণমূল লীগ, বাংলাদেশ জনতা পার্টি, বাংলাদেশ লেবার পার্টি, নাগরিক ঐক্য, মৌলিক বাংলা, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (বিএনডিপি), বাংলাদেশ ডেমোক্রেটিক মুভমেন্ট (বিডিএম), ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি বাংলাদেশ, বাংলাদেশ কংগ্রেস ও বাংলাদেশ আওয়ামী পার্টি-ভাসানী ন্যাপ,বাংলাদেশ জনতা পার্টি, বাংলাদেশ সমাজ উন্নয়ন পার্টি (বিএসডিপি), বাংলাদেশ জাতীয় লীগ, বাংলাদেশ নিউ সংসদ লীগ (বিএনএসএল), বাংলাদেশ পরিবহন লেবার পার্টি, বাংলাদেশ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-বাংলাদেশ বাসদ, নাকফুল বাংলাদেশ, তৃণমূল ন্যাশনাল পার্টি, বাংলাদেশ সত্যব্রত আন্দোলন, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি, বাংলাদেশ মানবাধিকার আন্দোলন, সোনার বাংলা উন্নয়ন লীগ, বাংলাদেশ জনতা পার্টি, ইনসানিয়াত বিপ্লব বাংলাদেশ, বাংলাদেশ সমাজ উন্নয়ন পার্টি, ন্যাশনাল কংগ্রেস বাংলাদেশ, বাংলাদেশ কৃষক শ্রমিক পার্টি, গণতান্ত্রিক ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ভাসানী), বাংলাদেশ ঘুষ নির্মূল পার্টি, বাংলাদেশ গণশক্তি দল, বাংলাদেশ সততা দল, বাংলাদেশ তৃণমূল পার্টি, বেঙ্গল জাতীয় কংগ্রেস (বিজেসি), বাংলাদেশ হিন্দু লীগ, বাংলাদেশ জনতা ফ্রন্ট, বাংলাদেশ কৃষক শ্রমিক পার্টি (কেএসপি),বাংলাদেশ মাইনরিটি জনতা পার্টি, সুশীল সামাজিক আন্দোলন, লিবারেল পার্টি (এলপি), বাংলাদেশ রামকৃষ্ণ পার্টি, বাংলাদেশ ইউনাইটেড ইসলামী পার্টিও ও মুক্ত রাজনৈতিক আন্দোলন।

Add comment

Security code
Refresh


advertisement