আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 10 মিনিট আগে

বাংলা চলচ্চিত্রের প্রখ্যাত অভিনেতা সিরাজ হায়দার আর নেই। বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর কল্যাণপুরে নিজ বাসায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। সিরাজ হায়দারের বড় ছেলে নাট্যনির্মাতা লেলিন হায়দার এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

Siraj hyder

লেলিন হায়দার বলেন, ‘রাতে ঘুমানোর সময় আমি বাবার সঙ্গেই ছিলাম। সকাল ৬টার দিকে বাথরুমে যেতে গিয়ে পড়ে যান। ঘুম ভেঙে দেখি বাবা আর নেই। তাকে হাসপাতালে নেয়ার সুযোগও পাইনি আমরা।’

তার মৃত্যুর খবর শুনে সকালেই আত্মীয়-স্বজনসহ চলচ্চিত্র শিল্পী ও কলাকুশলীরা শেষবারের মতো দেখার জন্য তার বাসায় ছুটে আসেন।

প্রবীণ এ অভিনয়‌ শিল্পীর মৃত্যুদের চল‌চ্চিত্রাঙ্গণে তৈ‌রি হয়েছে শোকের আবহ। সর্বস্তরের জনগণের শ্রদ্ধা জানাতে আজ বাদ জোহর এফডিসিতে নেয়া হয় সিরাজ হায়দারের লাশ। চিত্রনায়ক ওমর সা‌নি বলেন, ‘তিনি আমার বাবার বন্ধু। আমাকে বাবার মতো স্নেহ করতেন। এই মুহূর্তে তার মৃত্যু মেনে নেয়া যায় না।’

প্রসঙ্গত, সিরাজ হায়দার চার শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। ১৯৬২ সালে নবম শ্রেণির ছাত্র থাকাকালীন ১৪ আগস্ট পূর্ব পাকিস্তান জাতীয় দিবসে টিপু সুলতান নাটকে করিম শাহ চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে তার অভিনয় যাত্রা শুরু হয়।

১৯৭২ সালে প্রয়াত চলচ্চিত্র পরিচালক আবদুল্লাহ আল মামুনের সহকারী হিসেবে জল্লাদের দরবার নামক চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেন। প্রথম অভিনীত চলচ্চিত্রের নাম সুখের সংসার। নারায়ণ ঘোষ মিতা পরিচালিত এ চলচ্চিত্রে সিরাজ হায়দার খলনায়ক চরিত্রে অভিনয় করেন।

চলচ্চিত্রের পাশাপাশি মঞ্চেও সমানভাবে অভিনয় করেছেন এ শিল্পী। মাত্র ১৯ বছর বয়সেই মঞ্চনাটক নির্দেশনার দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। ১৯৭৬ সালে তিনি রঙ্গনা নাট্যগোষ্ঠী প্রতিষ্ঠা করেন এবং অনেক নাটকের নির্দেশনা দেন।

জীবনের শেষ সায়াহ্নে এসে সিরাজ হায়দার দুটি চলচ্চিত্র পরিচালনা করেছেন। এগুলো মধ্যে সুখ মুক্তি পেলেও আদম বেপারী মুক্তি পায়নি। তার স্ত্রী মিনা হায়দারও একজন অভিনেত্রী।

Add comment

Security code
Refresh