আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 15 মিনিট আগে

প্রধানমন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, '২০১৮ সালের শেষ দিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হবে। সংবিধান অনুযায়ী গঠিত নির্বাচনকালীন সরকার জাতিকে একটি সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিবে।'

prime minister sheikh hasina to country people

আওয়ামী লীগের সরকার গঠনের চার বছর পূর্তিতে শুক্রবার সন্ধ্যায় সাড়ে সাতটায় জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে এমন কথা জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, 'চলতি বছরের শেষেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কীভাবে নির্বাচন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে সেটি সংবিধানে স্পষ্ট উল্লেখ আছে।'

প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'সংবিধানের আলোকে অনুযায়ী নির্বাচনের আগে নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করা হবে। সেই সরকারই নির্বাচন কমিশনকে নির্বাচন পরিচালনায় সাহায্য করবে।'

সামনের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সকল নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, 'আমরা আশাবাদী নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত সকল দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দেশের গণতান্ত্রিক ধারাকে সমুন্নত রাখতে সবগুলো দল সহায়তা করবে বলেই আমরা বিশ্বাস করি।'

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টির আশঙ্কা এবং এসব থেকে সরে আসার আহ্বান জানান শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, 'কোন বিশেষ মহল নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশব্যাপী অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টির অপচেষ্টা করতে পারে। আমি এ বিষয়ে সকলকে সতর্ক থাকতে বলছি। জনগণ অশান্তি চায় না।'

উন্নয়নের অগ্রযাত্রা ব্যহত না করার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'বাংলাদেশ আর কারো দয়ার পাত্র নয়। বাংলাদেশ এখন অগ্রগতির রোল মডেল। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। আগামী প্রজন্মকে সমৃদ্ধশালী দেশ আমরা উপহার দেবো।'

প্রসঙ্গত, সংবিধান অনুযায়ী যদি নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হয় তাহলে বিএনপিসহ সংসদের বাইরে থাকা বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলোও সেই সরকারে থাকতে পারবে না। এদিকে নিরপেক্ষ নির্বাচনকালীন সরকারের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল।

Add comment

Security code
Refresh


advertisement