আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 20 মিনিট আগে

বহুল প্রতীক্ষিত চতুর্থ প্রজন্মের নেটওয়ার্ক বা ফোরজি চালু হতে যাচ্ছে আগামী ২১শে ফেব্রুয়ারি। আগামী ১৯শে ফেব্রুয়ারি রাজধানীতে একটি অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে দেশের মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন, রবি, বাংলালিংক ও টেলিটক কর্তৃপক্ষের হাতে ফোরজি'র লাইসেন্স তুলে দেবে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। তবে সবার আগে ফোরজি সেবা চালু করতে যাচ্ছে বাংলালিংক।

4g in bd

১৩ ফেব্রুয়ারি, মঙ্গলবার ঢাকা ক্লাবে তরঙ্গ নিলাম শেষে ফোরজি লাইসেন্স তুলে দেয়ার ঘোষণা আসে। বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ বলেন, ‘লাইসেন্স হাতে পেলেই অপারেটররা তাদের ইচ্ছেমতো ফোরজি সেবা চালু করতে পারবে। নিলাম শেষে বাংলালিংকের প্রধান নির্বাহী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক এরিক অস বলেন, ২১শে ফেব্রুয়ারিতেই ফোরজি সেবা চালু হচ্ছে।

রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে আয়োজিত আরেক অনুষ্ঠানে গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী মাইকেল ফলি বলেন, 'ফোরজি লাইসেন্স পেলেই দ্রুত ফোরজি চালু করা হবে। আমরা নেটওয়ার্কের আধুনিকায়ন করছি। গ্রাহকদের নিরবচ্ছিন্ন এইচডি ভিডিও ও লাইভ টিভি স্ট্রিমিং এবং ঝকঝকে ভিডিও কল দ্রুত গতিতে ডাউনলোডের চেষ্টা করছি।' তিনি এ সময় আধুনিক নেটওয়ার্ক উপভোগ করতে থ্রিজি সিম পরিবর্তন করে ফোরজি সিম কিনতে সকলকে অনুরোধ করেন।

দেশের সব মোবাইল ফোন অপারেটরই ইতোমধ্যে ফোরজি চালুর প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে। অপারেটরগুলো ইতোমধ্যে টেস্ট রানও করেছে। মোবাইল ফোন অপারেটর রবি ফোরজি চালুর দিনক্ষণ না বললেও তারাও প্রস্তুত বলে জানিয়েছে।

ফোরজি সম্পর্কে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ বলেন, 'মানুষ বর্তমানে কথা বলার চেয়ে ইন্টারনেটের ওপর বেশি নির্ভরশীল। পুরো পৃথিবীই ইন্টারনেটের মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে। ইন্টারনেটের গতি বাড়াতেই ফোরজি সেবা আসছে।'

গত বছরের নভেম্বর মাসে সচিবালয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ জানিয়েছিল নতুন বছরে দেশবাসীর জন্য উপহার হবে ফোরজি। তখন জানানো হয়েছিল- ফোরজির গতি হবে ২০ এমবিপিএস। পরে অবশ্য এই গতিও সংশোধন করা হয়। এদিকে ফোরজির গ্লোবাল স্ট্যান্ডার্ড গতি ১৬ এমবিপিএস। দাবি করা হয় দেশে ফোরজির ডাউনলোড গতি ১ এমবিপিএস থেকে শুরু করে ১ জিবিপিএস পর্যন্ত হতে পারে।

প্রসঙ্গত, এলটিই (লং টার্ম ইভোল্যুশন)-কেই চতুর্থ প্রজন্মের নেটওয়ার্ক বা ফোরজি বলা হয়। এই নেটওয়ার্কের মাধ্যমে প্রতি সেকেন্ডে ২ মেগাবাইট থেকে ৪০ মেগাবাইট পর্যন্ত গতিতে তথ্য আদান-প্রদান করা সম্ভব। তাত্ত্বিকভাবে ফোরজিতে ডাউনলোড গতি ১ জিবিপিএস পর্যন্ত হতে পারে। থ্রিজি ব্যবহারকারী কোন গ্রাহক ইন্টারনেটে প্রতি সেকেন্ডে ১৪ মেগাবাইট গতি পেলেই তিনি ফোরজি নেটওয়ার্কে ১ জিবিপিএস পর্যন্ত স্পিড পাবেন।

Add comment

Security code
Refresh