আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 03 মিনিট আগে

সাধারণত মানুষের ক্ষেত্রে বাচ্চা জন্মদানে কোন ধরনের জটিলতা এড়াতে সিজার করে প্রসবের ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে। কিন্তু অবাক করা খবর হল, এবার সেই সিজার করা হয়েছে একটি গাভীকে। সফল অস্ত্রপচারের মাধ্যমে গাভীর পেট থেকে বের করে আনা হয়েছে বাছুর বাচ্চা। ঘটনাটি ঘটেছে বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সিলেট জেলার ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায়।

cows caesar in sylhet

গত ২০ সেপ্টেম্বর ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার মনিপুর বাগানের চা শ্রমিক রবি দাসের গর্ভবতী গাভীটির পেট কেটে বাছুর বের করা হয়। জানা গেছে, গর্ভবতী ওই গাভীটি প্রসবের স্বাভাবিক সময় পার করলেও বাচ্চা প্রসব করতে পারেনি। প্রসব বেদনায় ক্রমেই ছটফট করতে শুরু করে গাভীটি। অবস্থার চরম অবনতি হয়ে মারা যাওয়ার উপক্রম হয়।

গাভীটির জীবন সংকটের বিষয়টি বুঝতে পেরে রবি দাস স্থানীয় উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসে যোগাযোগ করে সাহায্য চান। পরে সেখান থেকে দ্রুত পশু চিকিৎসক এসে গাভীটিকে সিজার করেন। এ বিষয়ে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা সার্জন ড. রমা পদ দে বলেন, 'আমরা রবি দাসের বাড়িতে গিয়ে গাভীটিকে খুবই নাজুক অবস্থায় পাই। গাভীর গর্ভের বাচ্চার কোনো স্পন্দন পাচ্ছিলাম না আমরা। তবে শেষ পর্যন্ত সংকটাপন্ন গাভীটিকে বাঁচাতে সফল হই। '

তিনি বলেন, 'প্রথমে গাভীটিকে বাঁচাতে লড়াই শুরু করলাম। কিন্তু তখন বৈরী আবহাওয়া ও অপর্যাপ্ত আলোর কারণে আমাদেরকে বড় ধরনের বাঁধার মুখে পড়তে হয়। তবু আমরা সাহস করে গাভীটির শরীরে অস্ত্রোপচার করে (সিজার অপারেশনের মাধ্যমে) বাচ্চা বের করার সিদ্ধান্ত নিলাম। পরে অল্প আলোতেই টানা চার ঘন্টা চেষ্টার পর সিজার সম্পন্ন হয়। গাভীটি থেকে বাচ্চা বের করে আনি। বাচ্চাটি আগেই মারা যাওয়ায় গাভীটির নানা ধরনের সমস্যা হচ্ছিল। গাভীটিকে বাঁচানোই ছিল আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ। সেই চ্যালেঞ্জে আমরা সফল।'

উপজেলা ভেটেরিনারি সার্জন ডা. রাজিব দাস বলেন, 'গাভীটির অপারেশনের ক্ষেত্রে পশু চিকিৎসায় ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি ও ঔষুধ ব্যবহার করা হয়েছে। গর্ভে বাচ্চা মারা গেলে বা উল্টে গেলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই গাভীসহ বাচ্চা মারা যায়। তবে এরকম সিজার 'কাইসারিয়ান সেকশন’ করে প্রসবকালীন পশুর মৃত্যুরোধ করা সম্ভব। কিন্তু পশুর মালিকরা অপারেশন পরবর্তী যত্ম নিতে ব্যর্থ হওয়ায় পশু মারা যায়। এ কারণে চিকিৎসকরা এ পদ্ধতি এড়িয়ে যেতে চান।'

গাভীটির মালিক চা শ্রমিক রবি দাস জানান, গাভীটি বর্তমানে সুস্থ আছে। তিনি নিয়মিত গাভীটির যত্ন নিচ্ছেন এবং চিকিৎকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

Add comment

Security code
Refresh