আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 20 মিনিট আগে

আবারো সংবাদের শিরোনাম ভারতের বিহার স্কুল পরীক্ষা বোর্ড। দুই বছর আগে প্রাথমিক জ্ঞান নেই এমন এক পরীক্ষার্থীকে বোর্ড পরীক্ষায় প্রথম বানিয়ে কেলেঙ্কারির জন্ম দেয় এই শিক্ষা বোর্ড। এবার মোট নম্বরের চেয়ে বেশি নম্বর দিয়ে নতুন কেলেঙ্কারির জন্ম দিয়েছে তারা।

bihar school exam

দ্বাদশ শ্রেণির কয়েকজন শিক্ষার্থী জানিয়েছেন, বোর্ড পরীক্ষায় মোট নম্বরের চেয়ে তারা বেশি নম্বর পেয়েছেন। এমনকি যেসব পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেননি সেগুলোতেও তারা নম্বর পেয়েছেন। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া ও ইকোনমিক টাইমস।

গত ২০১৬ সালের জুনে বিষ্ণু রায় কলেজের ছাত্র রুবি রায়কে বোর্ড পরীক্ষায় মানবিক বিভাগে প্রথম ঘোষণা করেছিল বিহার পরীক্ষা বোর্ড। পরে দেখা গেছে সে তার বিষয় সম্পর্কে প্রাথমিক প্রশ্নগুলোরও জবাব দিতে পারেনি। সে political science-কে বলে prodigal science।

আরওয়াল জেলার ভিম কুমার বলেন, গণিতের লিখিত অংশে আমি মোট ৩৫ নম্বরের মধ্যে ৩৮ পেয়েছি। একইভাবে বহুনির্বচনী (অবজেকটিভ) অংশে মোট ৩৫ নম্বরের মধ্যে ৩৭ পেয়েছি। তিনি বলেন, এতে আমি অবাক হইনি। কারণ দীর্ঘদিন ধরে রাজ্য বোর্ডে এমনটা ঘটে আসছে।

একইভাবে পূর্ব চাম্পারান জেলার সন্দীপ রাজ পদার্থ বিজ্ঞানের লিখিত অংশে মোট ৩৫ নম্বরের মধ্যে ৩৮ পেয়েছেন। তিনি বলেন, এটা কিভাবে সম্ভব! আমি ইংরেজি এবং রাষ্ট্রভাষা পরীক্ষায় বহুনির্বচনী অংশে শূন্য পেয়েছি। এছাড়া দরভঙ্গা জেলার রাহুল কবির গণিতের বহুনির্বচনী অংশে মোট ৩৫ নম্বরের মধ্যে ৪০ পেয়েছেন।

এদিকে ভাইশালি জেলার পরীক্ষার্থী জানভি সিং বলেন, তিনি জীববিজ্ঞান পরীক্ষায় অংশগ্রহণ না করেই ১৮ নম্বর পেয়েছেন। রাম কৃষ্ণ দ্বরিকা কলেজের সত্য কুমারের বেলায়ও তাই ঘটেছে। পরীক্ষা দেনটি এমন একটি বিষয়ে তাকেও নম্বর দেয়া হয়েছে।

Add comment

Security code
Refresh