আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 11 মিনিট আগে

চলে এলো পবিত্র ঈদুল আযহা। কোরবানির ঈদ বলে মাংস খাবার পরিমাণটাও স্বাভাবিকভাবেই বেশি হবে। তাই যাদের উচ্চ রক্তচাপ বা কোলেস্টেরল জনিত সমস্যা রয়েছে তাদের মাংস খাওয়ার ক্ষেত্রে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। সঠিক নিয়মে চর্বি বাদ দিয়ে পরিমিত পরিমাণে মাংস খেলে স্বাদ ও সুস্থতা, দুটোই ঠিক থাকবে।

eid meal tips

কোরবানি দেয়া প্রায় সব পশুর মাংসই লাল মাংস। আর যাদের কোলেস্টরলের সমস্যা আছে তাদের জন্য লাল মাংস প্রায় বিষের সমান। তবে লাল মাংসের পুরোটাই কিন্তু খারাপ নয়। বেশিরভাগ সময় মাংসে থাকা চর্বির অংশ শরীরে প্রবেশ করে ধমনি ও শিরায় জমাট বেঁধে তা ক্ষতির কারণ হয়। তাই কোরবানির মাংস খাওয়ার সময় প্রথমেই চর্বি কেটে বাদ দেয়া ভাল। আবার রান্নার সময় কিছুটা ঝলসে নিলেও চর্বি ঝরে যায়।এছাড়াও ফ্রিজে রাখার পরে চর্বি জমাট বাঁধে বলে তখন তা আলাদা করা যায় খুব সহজেই।

মুরগির মাংস খেতে হলে চামড়া, মাথা ও কলিজা বাদ দেয়া যেতে পারে। কেননা মুরগির চামড়ায় চর্বির পরিমাণ সবচেয়ে বেশি থাকে। আর মাথা ও কলিজায় চর্বি থাকে অনেক পরিমাণে।

যাদের উচ্চ রক্তচাপ, কোলেস্টেরলের সমস্যা, কিডনির সমস্যা ও হৃদরোগের মতো সমস্যা আছে তাদের মাংস খাওয়ার ক্ষেত্রে সংযত হতে হবে। মাংস ছাড়াও অন্যান্য খাবারের সময় কিছু নিয়ম মেনে চলা জরুরি। ডিমের কুসুম বাদ দিয়ে খাওয়া উচিৎ, ঘিয়ের বদলে ভেজিটেবল ওয়েল ব্যবহার করা ভালো আর মিষ্টি জাতীয় খাবারে ননী ছাড়া দুধ ব্যবহার করা যেতে পারে।

ঈদে মাংস খাওয়ার পাশাপাশি বেশি করে সালাদ, ফলমুল ও শাক-সবজি খেতে হবে। এছাড়া যে কোনরকম শারীরিক অস্বস্তি অনুভব হবে দেরি না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

Add comment

Security code
Refresh