আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 35 মিনিট আগে

শুষ্ক ও প্রাণহীন হয়ে পড়েছে ত্বক? ত্বকের জৌলুস ফিরিয়ে আনতে নিয়মিত গাজরের ফেসপ্যাক ব্যবহার করুন। গাজরে বিদ্যমান ভিটামিন এ, ডি এবং কে একসাথে শক্তিশালী অ্যান্টি অক্সিডেন্টের কাজ করে। গাজরে আরও রয়েছে বেটা-ক্যারোটিন, এটি ত্বকের মৃত চামড়া তুলে ফেলে এবং ত্বক প্রাকৃতিকভাবে ময়েশ্চারাইজড করে। এছাড়াও গাজর ত্বক উজ্জ্বল করার পাশাপাশি রোদে পোড়া দাগ এবং বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে। ত্বকের যত্নে কীভাবে গাজরের ফেসপ্যাক তৈরি ও ব্যবহার করবেন জেনে নিন-

carrots face pack

ত্বকের বিবর্ণতা দূর করে উজ্জ্বল করতে গাজরের খোসা ছাড়িয়ে পেস্ট করে এক টেবিল চামচ মধুর সাথে মেশান। মিশ্রণটি পাতলা আবরণে মুখ এবং গলার ত্বকে লাগিয়ে আধঘণ্টা পর স্ক্রাব করে ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে নিন।

ত্বকের কোমলতা বজায় রাখতে দুই টেবিল চামচ গুঁড়ো দুধের সাথে এক টেবিল চামচ গাজরের রস মিশিয়ে পেস্ট বানান। পেস্টটি আধঘণ্টা ত্বকে লাগিয়ে রেখে স্ক্রাব করে ধুয়ে নিন। ত্বক উজ্জ্বল ও কোমল করতে সপ্তাহে দুইদিন প্যাকটি ব্যবহার করুন।

বলিরেখা দূর করতে গাজরের রস বের করার পর ব্লেন্ডারের নিচের জমা গাজরের অংশের সাথে দু’টি ভিটামিন-ই ক্যাপসুল, এক টেবিল চামচ মধু এবং দুধের সর (প্রয়োজন মতো) মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। মাইল্ড ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে মিশ্রণটি লাগান। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।

শুষ্ক ত্বকের যত্নে সমপরিমাণ শসা এবং গাজরের রস মিশিয়ে এরসঙ্গে দশ ফোঁটা আমন্ড অয়েল দিন। মিশ্রণটি চক্রাকারে ত্বকে পাঁচ মিনিট ম্যাসাজ করে ১৫ মিনিট পর কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে এই প্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন। সমপরিমাণ বেসন ও গাজরের রস এবং কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মেশান। বাটার মিল্ক মিশ্রণে এটি দিয়ে ভালো করে ফেটিয়ে নিন। ফেসপ্যাকটি ত্বকে পাতলা করে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে স্ক্রাব করে ধুয়ে নিন। ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর করে এটি।

Add comment

Security code
Refresh