আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 11 মিনিট আগে

শীত অনেক তরুণের কাছে এক ধরণের ‘উপভোগ্য’ হলেও প্রবীণ বা বয়স্কদের জন্য তা আতংকের নাম। কারণ, বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও কমে যায়। যার ফলে ঋতু পরিবর্তনের বিষয়টি শরীর ভালোভাবে সায় দেয় না। বিশেষ করে শীত মৌসুমে বয়স্ক মানুষদের রোগে আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা বহুগুণ বেড়ে যায়। তাই তাদের জন্য চাই বিশেষ যত্ন।

aged people care in winter

অতিরিক্ত শীতে বয়স্কদের ঠাণ্ডা ও ইনফেকশন জনিত সমস্যা, রক্তচাপ, ডায়াবেটিস ও চামড়ার সমস্যা বাড়ে। হাত-পা বেশি ঠাণ্ডা হয়ে অঙ্গগুলো বিকল হয়ে যেতে পারে যাকে বলে হাইপোথারমিয়া। ফুসফুসের কাজ বন্ধ হয়ে যেতে পারে এর প্রভাবে। তাই অতিরিক্ত ঠাণ্ডা এড়িয়ে চলতে হবে।

হাইপোথারমিয়া দেখা গেলে রোগীর শরীর গরমের ব্যবস্থা নিতে হবে। এই সময়টায় গরম দুধ, চা, কফি বা স্যুপ খাওয়া যেতে পারে। আর রোগীর গায়ের পোশাক ঢিলেঢালা ও আরামদায়ক কিনা খেয়াল রাখতে হবে।

শীতে অনেকের এলার্জির সমস্যা দেখা দিতে পারে তাই শীতকালের ধুলাবালিতে সচেতন না থাকলে এলার্জি হয়ে উঠতে পারে বড় সমস্যা। শীতকালে ঠাণ্ডা ও এজমার সমস্যাও বাড়তে পারে তাই হাতের কাছে ইনহেলার রাখা জরুরি।

চিকিৎসকের পরামর্শে প্রয়োজনীয় ওষুধ খেতে হবে ব্রংকাইটিসের সমস্যায়। শীতে বাতসহ অন্যান্য ব্যাথা বাড়ে। তাই হাঁটাচলা একদম বন্ধ করে দেন কেউ কেউ। এই কাজটি করা একদম উচিত নয়। এই সময়ে হাঁটাহাঁটির পাশাপাশি হালকা ব্যায়াম করা উচিত।

শীতকাল ছাড়াও বয়স্কদের ক্যালসিয়ামের ওষুধ সেবন করা উচিত। আর ফ্যাট ও সুগার জাতীয় খাবার কম খেতে হবে। পুষ্টিযুক্ত খাবার ও গরম পানি ব্যবহারে শীতকাল সুস্থতার সাথে পার করা সম্ভব।

Add comment

Security code
Refresh


advertisement