আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 26 মিনিট আগে

বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত গতির সুপার কম্পিউটারটির মালিক ছিল চীন। তবে তাদের হটিয়ে জায়গাটা দখল করে নিল যুক্তরাষ্ট্র। তারা চীনের বর্তমান সুপার কম্পিউটারের চেয়ে দ্বিগুণ ক্ষমতাসম্পন্ন সুপার কম্পিউটারের মালিক হয়েছে। নতুন সুপার কম্পিউটারটির নাম সামিট।

summit suprecomputer

নতুন সুপার কম্পিউটার সামিট প্রতি সেকেন্ডে ২ লাখ ট্রিলিয়ন তথা ২০০ পেটাফ্লপস পরিমাণ হিসাব করতে পারে। আর চীনের সানওয়ে তাইহুলাইট সুপার কম্পিউটার হিসাব করতে পারে ৯৩ পেটাফ্লপস। খবর: বিবিসি।

প্রাথমিকভাবে নভো-পদার্থবিদ্যা, ক্যান্সার গবেষণা এবং সিস্টেমস বায়লোজি সংক্রান্ত বিষয়ে সামিট সুপার কম্পিউটার ব্যবহৃত হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের টেনেসি অঙ্গরাজ্যের ওয়াক রিজ ন্যাশনাল ল্যাবরেটরিতে (ওআরএনএল) সুপার কম্পিউটারটি রয়েছে। প্রযুক্তি জায়ান্ট আইবিএম এবং এনভিডিয়া যৌথভাবে এই সুপার কম্পিউটারটি তৈরি করেছে।

সুপার কম্পিউটার আকারে বড় হয়। বিশেষায়িত এবং বহুমাত্রিক ব্যাপক আকারের হিসাব সম্পন্ন করতে লাখ লাখ প্রসেসরের ব্যয়বহুল সিস্টেমস ফিচারিংয়ের সমন্বয়ে এটি তৈরি করা হয়।

গত ৮ জুন সামিট সুপার কম্পিউটার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ওআরএনএল ডিরেক্টর ড. থমাস জাকারিয়া বলেন, সামিটে রয়েছে ৪,৬০৮ কম্পিউট সার্ভার এবং ১০ পেটাবাইটস মেমোরি। যখন এটি তৈরি হচ্ছিল তখন একটি কম্পারেটিভ জিনোমিক্স কোড চালু করতে এটা ব্যবহার করা হয়েছিল।

গত ২০১৭ সালে প্রকাশিত বিশ্বের সুপার কম্পিউটারের তালিকায় দেখা যায়, শীর্ষ ৫০০টি সুপার কম্পিউটারের মধ্যে ১৪৩টির মালিক যুক্তরাষ্ট্র। আর চীনের রয়েছে ২০২টি। যুক্তরাষ্ট্রের এর আগের সবচেয়ে দ্রুত গতির সুপার কম্পিউটার টাইটান ছিল তালিকার পঞ্চম স্থানে।

Add comment

Security code
Refresh