আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 15 মিনিট আগে

বয়স ৭০ পার হবার পরেই হয়ত সবাই মৃত্যুর প্রহর গুনতে শুরু করেন। আর বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং তো হুইল চেয়ারে বসেছেন সেই কবেই। তার উপরে বয়স ৭০ পেরিয়ে ৭৫-এ যেয়ে পৌঁছেছে। বয়স ৭৫ হলে কি হবে মনটা এখনো ২৫ বছরের মত শক্ত। রিচার্ড ব্র্যানসন মহাকাশে যাওয়ার প্রস্তাব দিতে না দিতেই এক পায়ে খাড়া স্টিফেন হকিং। তিনি বললেন, 'যাব, যাব। নিশ্চয়ই যাব। তৈরি হয়েই আছি যাওয়ার জন্য।'

Stephen Hawking on chair

রিচার্ড ব্র্যানসনের মহাকাশযান 'ভার্জিন গ্যালাক্টিক ফ্লাইট'-এ চেপে এবার তিনি এই শেষ বয়সে মহাকাশে যাবেন। এমন খবর শুনে গোটা বিশ্বের বিজ্ঞানীরা নড়েচড়ে বসেছেন। 'গুড মর্নিং ব্রিটেন' নামে একটি টেলিভিশন শোতে হকিং বলেছেন, 'ব্র্যানসন সে দিন আমাকে বললেন, এ বার ভার্জিন গ্যালাক্টিককে (মহাকাশযান) পাঠাচ্ছি মহাকাশে। তাতে আপনাকে সওয়ার করব বলে ভেবেছি। যেতে চান? যাবেন মহাকাশে? আমার তো প্রস্তাবটা পেয়ে খুব ভাল লাগল। আশাই করতে পারিনি। প্রথমে আকাশ থেকে পড়েছিলাম। ভেবেছিলাম, ব্র্যানসন ঠাট্টা করছেন নাকি আমার সঙ্গে। পরে ওঁর মুখের দিকে তাকিয়ে বুঝলাম, উনি সিরিয়াস। সঙ্গে সঙ্গে রাজি হয়ে গেলাম। ব্র্যানসনকে বললাম, নিশ্চয়ই যাব। আমি এক্কেবারে তৈরি। আমার তিন ছেলেমেয়ে আমাকে অনেক আনন্দ দিয়েছে। কিন্তু তার পরেও বলছি, এত আনন্দ আমি এর আগে পাইনি। মহাকাশে যাওয়ার আনন্দে মেতে রয়েছি। ব্র্যানসন আমাকে আনন্দে ভরিয়ে দিয়েছেন।'

ব্র্যানসনের এটা বাণিজ্যিক মহাকাশ অভিযান হলেও শুধু হকিংই নন, তার সাথে বেশ কয়েক জনকে 'ভার্জিন গ্যালাক্টিক'-এ চাপিয়ে মহাকাশে নিয়ে যেতে চান তিনি। এই মহাকাশ যানে যারা ভ্রমণ করবেন সবাই নিজের খরচে ভ্রমণে যাবেন। তবে ব্র্যানসন জানিয়েছেন হকিং এর জন্য তিনি একটি অথিতি আসন বরাদ্ধ রেখেছেন। তবে হকিংকে নিয়ে কত তারিখে মহাকাশ যত্রা করা হবে তা এখনো নির্দিষ্ট করা হয়নি।

ব্র্যানসন তার বাণিজ্যিক মহাকাশ যান 'ভার্জিন গ্যালাক্টিক' নিয়ে মহাকাশ ভ্রমণে যেতে চেয়েছিলেন ২০০৯ সালে। বেশ কিছু সমস্যার কারণে তিনি সে সময় যেতে পারেননি। এখন সে সব সমস্যা কাটিয়ে উঠে তিনি যাওয়ার জন্য প্রস্তুত বলেও জানিয়েছেন।

২০১৪ সালে তিনি মহাকাশযান 'স্পেসশিপ-টু'র পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করেছিলেন এবং তিনি ব্যর্থ হয়েছিলেন। ক্যালিফোর্নিয়ার মোজাভে মরুভূমিতে তা টুকরো টুকরো হয়ে ভেঙে পড়েছিল। ২০১৪ সালেও ব্র্যানসন অফার দিয়েছিলেন হকিংকে। প্রস্তাব করেছিলেন, 'যাবেন মহাকাশে?' সে বার হকিং তাঁকে বলেছিলেন, 'আমার তো খুবই ইচ্ছা রয়েছে। কিন্তু ডাক্তাররা ছাড়বে না।'

মজা করে হকিং সেবার বলেছিলেন, 'তবে চলে যাওয়ার (মৃত্যু) জন্য এর চেয়ে ভাল উপায় আর কী হতে পারে!’ আর তার আগে ২০০৭ সালে মাইক্রো-গ্র্যাভিটির পরীক্ষায় এক বার নামানো হয়েছিল হকিংকে। তবে সেটা ছিল পৃথিবীর মধ্যেই। মৃত্যুর আগে এবার কি তিনি প্রমাণ করবেন, স্পেস (মহাকাশ) ইজ নট সো ব্ল্যাক!'

Add comment

Security code
Refresh