আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 10 মিনিট আগে

মিডিয়ার কল্যানে ভুয়া খবরে নানা সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। আর তাতে করে প্রাণনাশের ঘটনাও বিচিত্র নয়। সোসাল মিডিয়ার অসতর্কতার কারণে যখন প্রায়ই নানা জটিলতা দেখা দিচ্ছে ঠিক তখনই টুইটারের মত জনপ্রিয় যোগাযোগ মাধ্যমটি নতুন এক স্থগিতাদেশ দিয়েছে। কি সেই আদেশ?

twitter verification system

একাউন্ট এর সত্যতা যাচাই বাছাইকে ভেরিফিকেশন বলে। আর সম্প্রতি টুইটার তার একাউন্ট ভেরিফিকেশন সিস্টেমটি স্থগিত করেছে। যার ফলে সাধারন ব্যবহারকারীদের উৎকণ্ঠা বেড়েছে।

অতি সম্প্রতি রংপুরে ফেসবুকের একটি উস্কানিমূলক স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে বেশ কয়েকজন আহত এমনকি নিহত হওয়ার খবরও পাওয়া গেছে। সোসাল মিডিয়ার এমন সব খবরে সাধারণ ব্যবহারকারীরা স্বভাবতই আতংকিত। তবে এ ধরণের একাউন্টকে ব্যবহার করছে বা ভুয়া লোকের নামে আইডি থেকে উস্কানি আসছে কিনা তা যাচাইয়ের জন্য মিডিয়া কর্তৃপক্ষ কি ব্যবস্থা নিচ্ছে তাও বেশ গুরুত্বপুর্ন। এসব একাউন্ট সুরক্ষিত রাখতে টুইটার ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য যাচাইয়ের যে সুবিধাটি রেখেছিল তা বন্ধ করে দিয়েছে। কিন্তু স্থিতিশীলতা রক্ষায় যাচাই বাছাইয়ের প্রধান এই উপায় কেন বন্ধ করা হয়েছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে টুইটার কর্তৃপক্ষ থেকে একটি নতুন তথ্য জানা যায়।

একদল আন্দোলনকারীদের নামে খোলা গ্রুপটিকে ভুলবশত ভ্যারিফায়েড গ্রুপ হিসেবে টিক দেয়ার পর থেকে তাদের কাজের প্রক্রিয়া নিয়ে শুরু হয় তুমুল সমালোচনা। আর তাই তারা ভ্যারিফিকেশান সিস্টেমটিই স্থগিত করে দিয়েছে। যথার্থ উপায় অনুসন্ধান করে সব একাউন্ট ভেরিফিকেশনের আওতায় আনা হবে বলেই আশা সকল সাধারণ ব্যবহারকারীদের।

Add comment

Security code
Refresh