আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 41 মিনিট আগে

প্রতিনিয়ত লক্ষ লক্ষ ঘটনা ঘটে পৃথিবীতে, সেটা জানানোর দায়িত্ব গণমাধ্যমের। আধুনিক যুগে প্রিন্ট এবং ইলেকট্রনিক মাধ্যমগুলোর পাশাপাশি সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছে অনলাইন মাধ্যমগুলোও। তবে সত্য ঘটনা ছাড়াও ইচ্ছা প্রণোদিত ভুয়া খবর ছড়িয়ে দিতেও তৎপর সুযোগ সন্ধানীরা। আর ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের ঘটনা তো বহু পুরনো। 

fake news

খবরের সত্যতা যাচাইয়ের একটি অভিনব পদ্ধতির কথা জানিয়েছেন সান্তা ক্লারা ইউনিভারসিটির একজন সাংবাদিক অধ্যাপক। তার এই উদ্যোগে সাড়া দিয়েছে ফেসবুক টুইটারের মত জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো। খবর যাচাইয়ের নতুন এই পদ্ধতিটি তারা যুক্ত করেছে নিজেদের সাইটে।

ট্রাস্ট ইন্ডিকেটর নামক একটি আইকনের মাধ্যমে খবর যাচাইয়ের কাজ শুরু করেছে ফেসবুক। শুক্রবার থেকেই নিউজফিডের পাশে একটি আইকন পাওয়া যাচ্ছে। আর সেখানে ক্লিক করে জানা যাবে সেই খবরের আদ্যোপান্ত। সাংবাদিক, সংবাদ সংগ্রহের স্থান থেকে শুরু করে সমস্ত তথ্য থাকবে সেখানে।

প্রিন্ট মিডিয়া গুলোও এ নিয়ে কাজ শুরু করেছে। আর সেই তালিকায় আছে দ্য ইকোনোমিস্ট, দ্যা জার্মান প্রেস, দ্যা ইন্ডিপেনডেন্ট জার্নাল রিভিউ, দ্যা গ্লোব এন্ড মেল এর মত নামকরা পত্রিকাগুলো।

গুগল, টুইটারও একই ধরণের সুবিধা দিচ্ছে বলে জানা গেছে। আর এতে করে সুযোগ সন্ধানীদের কাছে তথ্য বিকৃতি করে প্রচারের সম্ভাবনা কমে যাবে। তাই এখন থেকে শুধু খবর পড়া নয় বিশ্বাসও করতে পারবেন।

Add comment

Security code
Refresh