আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 11 মিনিট আগে

দেশের ইন্টারনেটের মহাসড়ক মসৃণ করার ঘোষণা দিয়েছেন নবনিযুক্ত ডাক, টেলিযোগযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তিনি বলেন, ‘দেশকে ইন্টারনেট চলার মসৃণ মহাসড়ক তৈরিতে কাজ করব। কারণ, বাংলাদেশ ডিজিটাল কখনই হবে না যদি না ইন্টারনেটের মহাসড়কটা মসৃণ হয়।’

Mustafa jabber

বৃহস্পতিবার নিজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মোস্তাফা জব্বার এসব কথা বলেন। 

তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী বলেন, ‘২০০৮ সালেও আমরা খুব সামান্য পরিমাণ ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করতাম। তথ্যপ্রযুক্তির সঙ্গে যুক্ত মানুষের সংখ্যাও খুব কম ছিল। তখন মোবাইল ব্যবহারকারীও ছিল কম। আর এখন ১৬ কোটি মানুষের দেশে ১৪ কোটি ১৩ লাখ মানুষ মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন বলে পরিসংখ্যানে জানা গেছে। এখন প্রতিদিন মোবাইলের মাধ্যমেই হাজার কোটি টাকার বেশি লেনদেন হচ্ছে। এত কম সময়ে পৃথিবীর কোনো দেশে এমন হয়নি।’ 

তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়া সম্পর্কে বলতে গিয়ে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘৩০ বছর আগে যেখানে কম্পিউটার শেখানোর জন্য শিক্ষকও পাওয়া যেতো না, সেখানে তথ্য প্রযুক্তির সঙ্গে যুক্ত নয় এমন কোনো গ্রাম খুঁজে পাওয়া যাবে না। সব গ্রামেই এখন তথ্যপ্রযুক্তির সঙ্গে যুক্ত কেউ না কেউ আছে। ছেলেমেয়েদের এভাবে এগিয়ে যাওয়া আমাদের জন্য সম্ভাবনার।’ 

ব্যান্ডউইথ কিনে ডাটা বিক্রি চলবে না:  তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আমাদের যারা ইন্টারনেট সেবা দেন, মোবাইল ইন্টারনেট দেন তারা ব্যান্ডউইথ কেনেন আর আমাকে ডেটা বিক্রি করেন। এটি এক ধরণের অন্যায়। এই অন্যায় কোনোভাবে চলতে দেয়া উচিত না।  ব্যান্ডউইথ যারা কেনেন গ্রাহকদের কাছে তাদের ব্যান্ডউইথই বিক্রি করতে হবে। আর যারা এখন থ্রিজি দিচ্ছেন আর সামনে ফোরজি দেবেন তারা কিন্তু তাদের নেটওয়ার্ক তৈরি করেছেন আমাদের ভয়েস কলের জন্য । ভয়েস কলের নেটওয়ার্ক তৈরির পর কেউ যদি এসে বলে ৯৫ শতাংশ কস্ট আমার শুধু ইনফ্রাস্টাকচারের জন্য এটা বিশ্বাস করা কঠিন।

এমপি হওয়ার অফার ফিরিয়ে দেয়ার কথা: মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ৪৭ বছর ধরে পরিচিত। এতদিন আওয়ামী লীগের পেছনে থেকে কাজ করার চেষ্টা করেছি। দলের নির্বাচনী কর্মকাণ্ড, দলীয় কর্মকাণ্ডসহ মিডিয়ার সঙ্গে নেপথ্যে বিভিন্ন কাজ করেছি। প্রধানমন্ত্রী একবার আমাকে এমপি হওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন। আমি বলেছিলাম, না আমার এমপি হওয়ার চাইতে আপনার প্রধানমন্ত্রী হওয়া অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

Add comment

Security code
Refresh