আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 11 মিনিট আগে

বর্তমান সময়ের যোগাযোগ অন্যতম মাধ্যম ইলেকট্রনিক মেইলিং সিস্টেম বা ই-মেইল। অফিস-আদালত বা ব্যক্তিগত তথ্য-ফাইল আদান প্রদানের জন্য ই-মেইলের প্রতিদ্বন্দ্বী নেই। জনপ্রিয় এই মাধ্যমটির উদ্ভাবক রে টমলিনসন আর নেই।

ray tomlinson email

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানায়, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শনিবার যুক্তরাষ্ট্রে নিজের বাড়িতে মারা যান তিনি। আধুনিক ইন্টারনেট জগতের কিংবদন্তী প্রকৌশলীর বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। মৃত্যর সময় তার পরিবার পরিজন পাশেই ছিলেন।

টমলিনসন সর্বপ্রথম ইলেকট্রনিক মেসেজিং সিস্টেম বা ই-মেইলের ধারণা নিয়ে আসেন ১৯৭১ সালে। যা দিয়ে কম্পিউটারের একটি নেটওয়ার্ক থেকে অন্য নেটওয়ার্কে বার্তা পাঠানো যায়।

তার দেখানো পথেই ই-মেইলের যাত্রা শুরু। বর্তমানে তথ্য আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে প্রধান মাধ্যম ই-মেইল। সব ধরনের ই-মেইলে ডোমেইন ঠিকানার আগে যে @ (অ্যাট দ্য রেট অব)  প্রতীক ব্যবহার করা হয় তার প্রচলনও শুরু করেন এই প্রকৌশলী।

বিবিসি জানায়, বোস্টনের গবেষণা প্রতিষ্ঠানে প্রকৌশলী হিসেবে কাজ করার সময় টমলিনসন প্রথম ই-মেইলটি পাঠান আগে। তবে ই-মেইল বার্তাটিতে কি ছিল জানা যায়নি। ইন্টারনেটের প্রাথমিক সংস্করণের অনেক গবেষণাই ওই প্রতিষ্ঠান থেকে হয়েছিল।

তথ্য-প্রযুক্তিতে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১২ সালে ইন্টারনেটের হল অব ফেমে টমলিনসনের নাম যোগ হয়। মহান এই প্রযুক্তিবিদের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে টুইট করেছে জি-মেইল। টুইটটিতে অভিনব ই-মেইল উদ্ভাবন এবং @ চিহ্ন ব্যবহার শুরু করার জন্য রে টমলিনসনকে বিশেষ ধন্যবাদ দেয়া হয়।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন

টি২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপ নিয়ে গুগল-ডুডল

ফেসবুকের বিরুদ্ধে তদন্তে নামছে জার্মানি

জার্মানিতে জরিমানার মুখে ফেসবুক

Add comment

Security code
Refresh


advertisement