আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 54 মিনিট আগে

নিজের ইচ্ছেতে অধিনায়কত্ব ছাড়েননি এমএস ধোনি। বরং ভারতের সীমিত ওভারের অধিনায়ক তার দায়িত্ব ছেড়েছেন নির্বাচকদের চাপের মুখে। এমন একটি সংবাদ প্রকাশ করেছে ভারতের প্রতিষ্ঠিত গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস।

dhoni need to take two replacement for semi

তারা বলছে, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচক কমিটির প্রধান এমএসকে প্রসাদ দায়িত্ব নেয়ার পরই ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ নিয়ে পরিকল্পনা সাজাতে শুরু করেন। সেই পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই ধোনিকে বলেন অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিতে।

তারা ধোনিকে বোঝান যে, ২০১৯ বিশ্বকাপে তার বয়স হবে ৩৯ বছর। সে সময়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা তার জন্য সহজ কথা নয়। অর্থাৎ ওই বিশ্বকাপের দলে খেলোয়াড় হিসেবে তার জায়গা নিশ্চিত থাকবে না।

একই সঙ্গে নির্বাচকরা ধোনিকে বোঝান যে, টেস্টে অধিনায়ক হিসেবে দারুণ করছেন বিরাট কোহলি। দায়িত্ব নিয়েই ছয়টি সিরিজ জিতিয়েছেন তিনি। সুতরাং ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্বও এখন তার কাছে দিয়ে দেয়া ভালো।

প্রথমবার প্রধান নির্বাচকের এমন কথার পর ধোনি কোনো মন্তব্য করেননি। কোনো রকম পদক্ষেপও নেননি। পরে আরো একবার প্রধান নির্বাচক এবং তার সহকর্মীরা ধোনিকে একই ব্যাপারে বোঝান। এরপরই ধোনি তার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেন।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আসন্ন ওয়ানডে সিরিজের আগেই ধোনি তার দায়িত্ব ছাড়েন। তবে খেলোয়াড় হিসেবে তিনি এখনো দলে থাকতে চান বলে জানান। পরে তার কথাই বোর্ড আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করে দেয়।

advertisement

Add comment

Security code
Refresh