আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 11 মিনিট আগে

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২০১৫ সালের অক্টোবরে যখন অভিষেক হলো রশিদ খানের বয়স তখন ১৭ বছরও হয়নি। অভিজ্ঞতা মাত্র চারটি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ খেলার। মাত্র চারটি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ খেলা ১৭ বছরের এক ক্রিকেটারের আন্তর্জাতিক ময়দানে নেমে পরার সুযোগ পাওয়াটাই আশ্চর্য মনে হচ্ছিল। তবে সেই আশ্চর্য উড়ে গেছে অনেক আগেই। রশিদ খান এখন দিনের পর দিন ঘূর্ণি জাদুতে আশ্চর্য ছড়াচ্ছেন।

rashid khan at big bash

অভিষেকের পর থেকেই চমক দেখিয়ে যাচ্ছেন এই আফগান তরুণ। অনেকে রশিদকে বর্তমান বিশ্বের সেরা লেগস্পিনারও বলছেন। আফগানিস্তান জাতীয় দলের পাশাপাশি গত আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে বিস্ময় দেখিয়েছেন। ক’দিন আগে বিপিএলে ঘূর্ণি জাদু দেখালেন। আফগানিস্তানের দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে রশিদ খান এখন অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া লিগ বিগ ব্যাশ খেলছেন।

আর আফগানিস্তানের একজন স্পিনারকে কিনে যে ভুল করেনি বিগ ব্যাশের দল অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্স কাল প্রথম ম্যাচেই সেটা প্রমাণ করলেন রশিদ খান। স্পিনার হয়েও অস্ট্রেলিয়ার গতিময় উইকেটে জাদু দেখিয়েছেন। চার ওভার বোলিং করে ২২ রানের বিনিময়ে ২ উইকেট তুলে নিয়েছেন। খালি চোখে পারফরম্যান্স খুব আহামরি কিছু নয়, তবে ২২ রান দিলেও কাল সিডনি থান্ডারের ব্যাটসম্যানদের যেভাবে নাচিয়ে ছাড়লেন রশিদ, সেটা গল্প করার মতো।

ইনিংসের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে প্রতিপক্ষের শক্ত ব্যাটসম্যানরা যখন ক্রিজে ছিলেন তখন বোলিং করতে হয়েছে। তারপরও রশিদের চার ওভারের ১২ বল থেকেই কোন রান নিতে পারেনি সিডনি ব্যাটসম্যানরা। ১১তম ওভারে পরপর তিনটি ডেলিভারি যেভাবে করলেন সেটা নিয়েই বেশি আলোচনা হচ্ছে।

ওভারের প্রথম বলে সিডনি ব্যাটসম্যান রায়ান গিবসনকে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিতে বাধ্য করলেন। এক বলের বিরতিতে রশিদের হাত থেকে বেরিয়ে এলো আসল ভেল্কি। বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান বেন রোহর স্বাভাবিকভাবেই লেগ স্পিনের অপেক্ষায় ছিল। কিন্তু রশিদের হাত থেকে বেরুলো অসাধারণ এক গুগলি। বাঁ-হাতি ব্যাটম্যানের জন্য নিখুঁত এক ‘রং ওয়ান’! তার জবাব দিতে পারেনি বেন রোহর সরাসরি বোল্ড।

গুরুত্বপূর্ণ সময়ে বোলিংয়ে এসে রান কম দিয়ে দুই উইকেট তুলে নিয়ে অ্যাডিলেডের জয়ের রাস্তাটাও পাকা করেছেন রশিদ। শেষ পর্যন্ত ম্যাচটা ৫৩ রানে জিতেছে অ্যাডিলেড। প্রথমে ব্যাট করে নির্ধাতি ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৩ রান তুলেছিল অ্যাডিলেড। পরে ১৭.৪ ওভারে ১১০ রানে গুটিয়ে গেছে সিডনি। ম্যাচ সেরার পুরস্কারও উঠেছে রশিদের হাতেই।

Add comment

Security code
Refresh