আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 11 মিনিট আগে

পদের নাম টেকনিক্যাল ডিরেক্টর হলেও আসন্ন ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশের প্রধান কোচ আসলে খালেদ মাহমুদ সুজন। জিম্বাবুয়ের প্রধান কোচের দায়িত্বে আছেন তাদেরই সাবেক অধিনায়ক হিথ স্ট্রিক। আর চান্দিকা হাথুরুসিংহে বাংলাদেশে পা রেখেছেন নিজ দেশ শ্রীলঙ্কার কোচ হয়ে। একটা বিষয় নিশ্চয় এখানে না বললেও হয় যে, এই সিরিজটা এই তিন কোচের জন্য আসলে মিলনমেলা!

heath streak came back to bangladesh as zimbabwe coach

খালেদ মাহমুদ, হিথ স্ট্রিক এবং চান্দিকা দুই বছরেরও কম সময় আগে একই সঙ্গে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে ছিলেন। তিনজনেরই লক্ষ্য ছিলো একটি— বাংলাদেশ দলের উন্নতি। কিন্তু এখন তারা পরস্পরের প্রতিপক্ষ। তাদের লক্ষ্যও ভিন্ন ভিন্ন।

তিন কোচের মধ্যে খালেদ মাহমুদ তো বাংলাদেশেই ছিলেন। গতকাল পা রেখেছেন হিথ স্ট্রিক আর আজ এসেছেন চান্দিকা হাথুরুসিংহে। এদের মধ্যে হিথ স্ট্রিক শনিবার মুখোমুখি হন সংবাদ মাধ্যমের। এর মাধ্যমে শুরু হয়ে যায় ত্রিদেশীয় সিরিজের আনুষ্ঠানিকতাও।

কোচদের ‘মিলেনমেলা’ নিয়ে হিথ স্ট্রিক বলেন, ‘আসলে এখনকার দিনে এমন প্রায়ই হয়। অনেক কোচই এক সঙ্গে কাজ করেন এবং সময়ের ব্যাবধানে প্রতিপক্ষ হয়ে যান। খালেদ মাহমুদ ও চান্দিকার সঙ্গে আমার খুব ভালো সম্পর্ক আছে। আমার মনে হয় এই সিরিজটি আমাদের তিনজনের জন্যই খুব কঠিন হবে।’

কঠিন যে হবে, সেটা হিথ স্ট্রিক না বললেও হতো। তিন দলের জন্যই সিরিজটি কঠিন হওয়ার মূল কারণ, প্রতিটি দলই পরস্পরকে খুব ভালো করে চিনে। এ ছাড়া শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় গত বিপিএল খেলে গেছেন। ফলে বাংলাদেশের কন্ডিশন তাদের কাছে গোপন কিছু নয়।

সাবেক সহকর্মী ও বর্তমান কোচদের মিলনমেলায় শেষ পর্যন্ত কার জয় হবে, তা বলে দিবে সময়ই। জিম্বাবুয়ে কোচ নিজেদেরকে আন্ডারডগ বলে দাবি করে এর মধ্যেই লড়াই থেকে নিজেদের গুটিয়ে নিয়েছেন। মানে চূড়ান্ত লড়াইটা হবে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে। আরো বিশেষ করে বললে— লড়াই হবে চান্দিকা ও সুজনের মধ্যে!

Add comment

Security code
Refresh


advertisement