আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 06 মিনিট আগে

আঙুলে পড়েছে দশ দশটা সেলাই। ব্যথাটা যায়নি পুরোপুরি। কতো দিন লাগবে ফিট হতে, সেটাও ছিলো অনিশ্চিত। এর মধ্যেও খেলতে চেয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। আঙুলে ব্যথা থাকলেও মনোজগতে সাকিব ছিলেন সবল- ব্যথাহীন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সাকিবের আশা পূরণ হচ্ছে না। মনের শক্তি তাকে জেতাতে পারছে না দেহের ব্যথার বিরুদ্ধে। টি-টোয়েন্টি সিরিজেও তাই তাকে থাকতে হচ্ছে দর্শক হয়েই।

shakib wanted to play t20 series against sri lanka

বিসিবি আপাতত প্রথম টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড ঘোষণা করেছে। মানে এখনো দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে সাকিব খেলতে পারেন, এমন আশা করছে বিসিবি। এই আশাটা পূরণ হওয়ার সম্ভাবনা কমই।

গত ১০ তারিখে খোলা হয়েছে সাকিবের হাতের সেলাই। এরপরও ক্ষতস্থানে অবস্থা এমন, যা ১৮ ফেব্রুয়ারির আগে পুরোপুরি সেরে যাওয়ার সম্ভাবনা কম। ফলে তার দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি খেলার সম্ভাবনাও প্রায় নেই বললেই চলে।

সাকিবের না থাকাটা বাংলাদেশের জন্য কতো বড় ক্ষতির ব্যাপার, তা এই সিরিজে বারবার প্রমাণ হচ্ছে। ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে আঙুলে চোট পান সাকিব। চোটের কারণে ওই ম্যাচে কোটার ১০ ওভার শেষ করতে পারেননি তিনি। পরে নামতে পারেননি ব্যাটিংয়েও। ওই ম্যাচে বাংলাদেশ সহজ লক্ষ্য পেয়েও জিততে পারেনি। অথচ ফাইনালে বাংলাদেশই ছিলো ফেবারিট।

সাকিবের না থাকার অভাবটা বাংলাদেশ হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছে টেস্ট সিরিজেও। চট্টগ্রাম টেস্টটা ড্র করে ফিরতে পারলেও বাংলাদেশ ঢাকায় এসে হেরেছে আড়াই দিনেরও কম সময়ে। ম্যাচ শেষে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এ কথা স্বীকার করতে মোটেও দ্বিধা করেননি যে তারা সাকিবকে কতোটা ‘বিশালভাবে’ তারা সাকিবকে মিস করেছেন।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত মোট সাতটি টি-টোয়েন্টি খেলেছে। এতে বাংলাদেশের জয় মাত্র দুটি। দুটিতেই ত্রিশোর্ধ্ব দুটি ইনিংস খেলেছেন সাকিব। এই সিরিজেও নিশ্চিতভাবে তাকে আশা করেছিলো বাংলাদেশ। কিন্তু নিয়তির উপর যেহেতু কারো হাত নেই, সেহেতু সাকিবকে এই সিরিজেও মিস করতে যাচ্ছেন মাহমুদুল্লাহরা। কিন্তু এই মিসটা যাতে ‘বিশালভাবে’ না হয়, সেটা নিশ্চয় সাকিবও চাইবেন!

Add comment

Security code
Refresh


advertisement