আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 43 মিনিট আগে

গর্ডন গ্রিনিজ যখন বাংলাদেশ দলের কোচ হয়ে আসেন, তখন বিশ্বকাপ খেলার জন্য পাগল হয়ে অপেক্ষা করছে পুরো দেশ। ক্রিকেট তখনও খুব একটা জনপ্রিয় নয়। সে সময়টা ছিলো ফুটবলের। যদিও তার আগেই বাংলাদেশের ফুটবলের স্বর্ণালী দিনের শেষ সূর্যটা প্রায় ডুবে গেছে। ওই রকম বিরুদ্ধ সময়ে এসে গর্ডন গ্রিনিজ পূরণ করে দিয়েছিলেন বাংলাদেশের বিশ্বকাপ খেলার স্বপ্ন। ক্যারিবীয় কিংবদন্তি আবার যখন বাংলাদেশে এলেন, মাশরাফিরা তখন পাঁচ বিশ্বকাপ খেলার অভিজ্ঞতায় ঋদ্ধ। এমন সময়ে এসে মাশরাফি-মিরাজদের কী বলে গেলেন তিনি?

gordin at bangladesh team practice

গর্ডনের দেশ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আগামী জুলাইয়ে খেলতে নামবে বাংলাদেশ। ওই সিরিজ সামনে রেখে নিবিড় অনুশীলনে মগ্ন মাশরাফিরা। এরই ফাঁকে বুধবার গর্ডন হাজির হলেন বাংলাদেশ দলের অনুশীলনে। দিন কয়েক আগে তিনি ঢাকা এসেছেন এক ব্যক্তিগত কাজে। এই সুযোগে তাকে কাছে পেয়ে বিশেষ সম্মাননাও দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

গর্ডনকে কাছে পেয়ে স্বভাবতই আবেগে ভেসে গেছেন মাশরাফিরা। যার হাত ধরে প্রথমবার বিশ্ব মঞ্চে উড়েছে বাংলাদেশের পতাকা, তাকে কাছে পাওয়া যে বাড়তি আবেগের বাতাস বইয়ে দিবে, সেটাই অবশ্য স্বাভাবিক।

গর্ডনের সঙ্গে কথা বলার পর সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হন মেহেদি হাসান মিরাজ। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘গর্ডন কিংবদন্তি। তাকে কাছে পাওয়া আমাদের জন্য অনেক বড় ব্যাপার। তিনি আমাদের অনুপ্রেরণাদায়ক অনেক কথা বলেছেন। তার উপস্থিতি আমাদের জন্য খুবই গর্বের ব্যাপার।’

১৯৯৭ সালে বাংলাদেশ যখন আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিতে বিশ্বকাপের দরজায় পা রাখলো, মিরাজের বয়স তখন মাত্র তিন বছর। সুতরাং বিশ্বকাপে উঠার আনন্দ বাংলাদেশে যে দুকূলপ্লাবী আবেগের উচ্ছ্বাস নিয়ে হাজির হয়েছিলো, সেই স্মৃতি তার নেই। তারপরও গর্ডনকে নিয়ে কথা বলার মিরাজ ঠিকই আবেগে কাঁপলেন। গর্ডনের অনুপ্রেরণাদায়ক কথাগুলোও নিশ্চয় মনে রাখবেন বাংলাদেশের তরুণ অলরাউন্ডার!

Add comment

Security code
Refresh