আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 36 মিনিট আগে

মাঠে গত মৌসুমগুলোর চেয়ে এবারই বেশি উজ্জলতা ছড়িয়ে যাচ্ছেন নেইমার। আক্রমণভাগে বার্সেলোনার জার্সিতে যেন ফুল ফুটিয়ে যাচ্ছেন ব্রাজিল তারকা। কিন্তু কেন জানি গোল পাচ্ছিলেন না চাহিদামতো। গতকালের আগে বার্সার জার্সিতে ৪২ ম্যাচ খেলে গোল করেছিলেন ১৬টি। নেইমারের মতো ফুটবলারের নামের পাশে এটা বেশ বেমানান। গতকাল মাঠ নামার আগে সেটা ভালো ভাবে বুঝতে পাড়লেন বলেই হয়তো আহত বাঘের মতো হুংকার দিয়ে উঠলেন। আর নেইমারের মতো ফুটলার নিজেদের দিনে প্রতিপক্ষের কি হাল করে ছাড়তে পারে লাস পালসামের কাল তাই হলো। ৪-১ গোলে হেরেছে লাস পালমাস।

neymar vs las palmas

বার্সার চার গোলের চারটিতেই নেইমারের প্রত্যক্ষ অবদান। তিনটি নিজেই করেছেন। এবারের মৌসুমে ব্রাজিলিয়ান তারকার এটা প্রথম হ্যাটট্রিক। কাল বার্সার অন্য গোলটি করেছেন লুইস সুয়ারেজ। অসাধারণ এক পাসে সেটা বানিয়েও দিয়েছেন নেইমার।

নেইমার জাদুতে এই জয়ে শিরোপার সম্ভাবনা টিকেই রইল বার্সেলোনার। একই সময়ে মাঠে নেমে রিয়াল মাদ্রিদও জিতেছে। যাতে দুই দলের পয়েন্টই সমান। তবে মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে থাকায় বার্সা টেবিলের শীর্ষে। তবে কার্যত শিরোপার দৌড়ে রিয়ালই অনেকটা এগিয়ে। কারণ একটা ম্যাচ কম খেলেছে জিনেদিন জিদানের দল। অর্থাৎ রিয়াল মাদ্রিদ যদি একটি ম্যাচ হেরে যায় তবেই লিগ শিরোপা ধরে রাখা সম্ভব হবে বার্তমান চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনার।

গতকাল লাস পালমাসের মাঠে ২৫ মিনিটে লুইস সুয়ারেজের নিঃস্বার্থ এক পাসে ২৫ মিনিটে বার্সাকে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে নেন নেইমার। দুই মিনিট পরই প্রতিদান ফিরিয়ে দেন নেইমার। বাম কোন থেকে নেইমারের ডিফেন্স চেড়া অসাধারণ এক পাস খুঁজে নেয় সুয়ারেজকে। আলতো চিপে ব্যবধানে ২-০ করেন সুয়ারেজ।

৬৭ মিনিটে গিয়ে ডি-বক্সের মধ্য থেকে হেডে নিজের দুই নম্বর ও বার্সার তিন নম্বর গোলটি আদায় করে নেন নেইমার। আর হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেছেন ৭১ মিনিটে গিয়ে। জর্ডি আলবার পাসে কাটা কম্পাসে মাপা এক টোকায় লাস পালমাস গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে বল জালে জড়িয়ে দেন নেইমার। এর আগে ৬৩ মিনিটে লাস পালমাস একটি গোল পরিশোধ করলে শেষ পর্যন্ত ৪-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সেলোনা।

Add comment

Security code
Refresh


advertisement