আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 11 মিনিট আগে

শক্তির বিচারে অনেকটা পিছিয়ে থাকা ব্রিস্টল সিটির মতো প্রতিপক্ষ। খেলাটা আবার ম্যানচেস্টার সিটির মাঠে। দাপুটে একটা জয় ছাড়া আর কিইবা ভাবতে পারে ম্যানচেস্টার সিটি সমর্থকরা! চলতি মৌসুমে ম্যানসিটি যেভাবে খেলছে তাতে এমন ভাবনাই স্বাভাবিক। ম্যানচেস্টার সিটি জিতলও, তবে বেশ ঘাম ঝরিয়ে। লিগ কাপের সেমিফাইনালের প্রথম লেগে ব্রিস্টল সিটির বিপক্ষে ২-১ গোলের নাটকীয় এক জয় পেয়েছে পেপ গার্দিওলার দল।

manchester city vs bristol city 2 1

এই জয়টা লিগ কাপের ফাইনালে অনেকটা এগিয়ে দিল ম্যানচেস্টারের অন্যতম সফল ক্লাবটিকে। কারণ ব্রিস্টলকে ফাইনালে যেতে হলে জিততে হবে অন্তত দুই গোলের ব্যবধানে। আবার ম্যানসিটি যদি একটি গোল করে বসে তাহলে ৩-১ গোলের ব্যবধানে জিততে হবে। পেপ গার্দিওলার দল যে গতিতে উড়ছে তাতে ব্রিস্টলের কোনো সমর্থকই হয়তো ফাইনালের কথা চিন্তা করছেন না!

ঘরের মাঠে কাল ব্রিস্টলের বিপক্ষে দাপুটে ফুটবলই খেলেছে ম্যানচেস্টার সিটি। কিন্তু গ্যাব্রিয়েল জেসুসের অনুপস্থিতিতে আক্রমণভাগে গিয়ে কেমন জানি খেই হারিয়ে ফেলছিল সিটিজেনরা। ৪৪ মিনিটে সিটির জন্য বড় বিড়ম্বনাটা টেনে নিয়ে আসেন জন স্টোনস। ব্রিস্টলের ববি রেইডকে বক্সের মধ্যে ফাউল করে বসেন জন। পেনাল্টির বাঁশি বাজাতে দেরি করেননি রেফারি, আর পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্রিস্টলকে ১-০ গোলে এগিয়ে নিতেও ভুল করেননি ববি রেইড।

বেশিক্ষণ অবশ্য পিছিয়ে থাকতে হয়নি সিটিজেনদের। ৫৫ মিনিটে পাল্টা আক্রমণে দারুণ এক জোরালো শটে সিটিকে ১-১ গোলে সমতায় ফেরান কেভিন ডি ব্রুইন। কিন্তু সমতায় ফিরলেও জয়সূচক গোলটি আর পাচ্ছিল না ম্যানসিটি। আক্রমণের পর আক্রমণ করেও গোল পাচ্ছিল না স্বাগতিকরা।

অবশেষে ম্যাচের শেষ বাঁশি বাজার কিছুক্ষণ আগে দারুণ এক হেডে ম্যানচেস্টার সিটিকে ২-১ গোলে এগিয়ে নেন আর্জেন্টাইন তারকা সার্জিও আগুয়েরো। শেষ পর্যন্ত জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ম্যানচেস্টার সিটি।

Add comment

Security code
Refresh