আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 37 মিনিট আগে

আফ্রিকান ফুটবলের সর্বকালের সেরা তারকাদের তালিকা তৈরি করলে তার নামটা ওপরের দিকেই থাকবে। চেলসির ইতিহাসের সঙ্গেও জুড়ে আছে এই ফুটবলার নাম। তিনি দিদিয়ের দ্রগবা। সোমবার বুট জোড়া তুলে রাখার অগ্রিম ঘোষণা দিয়ে বসলেন তিনি।

drogba says bye

দ্রগবার আগুনঝরা পারফরম্যান্সের সুবাদে প্রথমবারের মতো উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছিল চেলসি। এই স্মৃতিটা এখন অতীত। বাস্তবতা হচ্ছে বয়সের ভারে তিনি এখন খেলছেন দ্বিতীয় সারির ক্লাবে; ফনিক্স রাইজিংয়ের জার্সিতে মাতাচ্ছেন ইউনাইটেড সকার লিগ (ইউএসএল)।

উত্তর আমেরিকান ফুটবলকেও সাবেক বানাতে যাচ্ছেন ৪০ বছর বয়সী দ্রগবা। ইউএসএলের চলমান মৌসুম শেষে পেশাদার ক্লাব ক্যারিয়ারকে বিদায় জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এই স্ট্রাইকার। কিন্তু ফুটবল থেকে নিজেকে একেবারে গুটিয়ে নিচ্ছেন না তিনি।

সোমবার বুট জোড়া তুলে রাখার অগ্রিম ঘেষণা দিয়ে টেলিফুটকে দ্রগবা বলেছেন, ‘আমি এখনো খেলাটাকে উপভোগ করছি। কিন্তু আমার বয়স ইতোমধ্যে ৪০ হয়ে গেছে। এটাই (অবসর নেওয়ার) সঠিক সময়।’ এরপরও ফুটবলের সঙ্গে থাকছেন দ্রাগবা। ফনিক্স রাইজিংয়ের মালিকানার একটা অংশ কিনে নিয়েছেন আফ্রিকার সাবেক বর্ষসেরা ফুটবলার!

ফ্রেঞ্চ ফুটবল মাতিয়ে ২০০৪ সালে ইংল্যান্ডে এসেছিলেন দ্রগবা। চেলসির ইতিহাসের সবচেয়ে ফুটবলার হিসেবে পা রাখেন স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে। বড় অঙ্ক দিয়ে তাকে কেন চেলসি দলে ভিড়িয়েছে সেটার প্রমাণও দিয়েছেন আইভরি কোস্টের এই তারকা। তার ওপর আস্থা ছিল বিধায় দ্বিতীয় মেয়াদে ২০১৪-১৫ মৌসুমে পশ্চিম লন্ডনের ক্লাবটি পুনরায় খেলতে পেরেছিলেন দ্রগবা।

ক্লাব ক্যারিয়ারে দ্রগবা সম্ভাব্য প্রায় সবকিছুই জিতেছেন। তবে সবচেয়ে বেশি সাফল্য পেয়েছেন চেলসি-অধ্যায়ে। ব্লুজদের হয়ে চারটি ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, চারটি এফএ কাপ, তিনটি ইংলিশ লিগ কাপ এবং একটি চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা জেতেন দ্রগবা।

ক্যারিয়ারের শেষ প্রান্তে নিজেকে এমন একটা জায়গায় দেখতে পেয়ে স্বাভাবিকভাবেই উচ্ছ্বসিত দ্রগবা। বলেছেন, ‘এই পর্যন্ত আসতে পেরে আমি খুব খুশি। তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা পোষণ করছি, যাদের জন্য আজ আমি এখানে।’

Add comment

Security code
Refresh