আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 41 মিনিট আগে

হিন্দি কৃষ ছবির একটি দৃশ্যে কনসার্টে আগুন লেগে গেলে সাহসী উদ্ধারকারী রূপে আবির্ভূত হন নায়ক হৃতিক রোশন। এটাতো সিনেমার কথা, কিন্তু বাস্তবেই এবার ঘটেছে তেমন ঘটনা। রেস্তোরায় জন্মদিনের পার্টিতে ভয়াবহ আগ্নিকাণ্ডে যখন চারদিক পুড়ছিল, যখন সবাই প্রাণ নিয়ে ছুটে পালানোর চেষ্টা করছে তখন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অনেককে উদ্ধার করেছেন এক পুলিশ কনস্টেবল।

police carrying a woman

কনস্টেবলের এমন সাহসিকতায় মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে গেছেন অনেক মানুষ। গত ২৯ ডিসেম্বর রাতে ভারতের মুম্বাইয়ের ‘কমলা মিলস’ রেস্টুরেন্ট এন্ড শপিং কমপাউন্ডের একটি রোস্তোরায় আগুন লাগলে আটকে পড়া মানুষ সাহায্যের জন্য চিৎকার করতে থাকেন। আগুনের লেলিহানে যে যার মত করে যখন জীবন নিয়ে পালানোর চেষ্টা করছিল তখন পুলিশ কস্টেবল নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বহু মানুষের প্রাণ বাঁচিয়েছেন।

সহসী ওই পুলিশ কনস্টেবল মুম্বাইয়ের ওরলি থানায় কর্মরত। তার নাম সুদর্শন সিন্দে। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে জানানো হয়েছে, দুর্ঘটনার দিন রেস্টুরেন্টে এক নারীর জন্মদিন উপলক্ষে পার্টির আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু সেখানে আগুন লেগে গেলে ১১ নারীসহ ১৪ জন মারা যান এবং আহত হন আরো ২১ জন।

ওই মৃত্যুময় পরিস্থিতিতে সুদর্শন সিন্দের সাহসিকতার ফলে আরো বেশ কয়েকজন মানুষ নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পেয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়েছে, চোখের সামনে যখন অনেকে আগুনে পুড়ছেন আর আর্তনাত করতে করতে এদিক ওদিক ছুটে চলছেন তখন সিন্দে নিজে আগুনের মধ্যে ছুটে যান। কোলে, পিঠে ও কাঁধে করে অনেককে বের করে নিয়ে আসেন।

ঝুকিপূর্ণ সেই মুহূর্তের কথা বলতে গিয়ে সুদর্শন সিন্দে বলেন, ‘আগুন লাগার পর আটকে পড়া মানুষগুলোর বাঁচার আকুতি আমাকে সাড়া দেয়। আমি ভাবতেছিলাম কিভাবে ভিতরে আটকে পড়া মানুষগুলোকে বাঁচানো যায়। তাৎক্ষণাত আমি দৌড়ে রোস্তোরার সিঁড়ি দিয়ে উপরে উঠে যাই। তখন সিঁড়ি দিয়ে স্ট্রেচার নিয়ে যাওয়া সম্ভব ছিল না। তাই কোলে-কাঁধে করেই আহতদের নামিয়ে আনতে শুরু করি।'

সুদর্শন সিন্দের এই উদ্ধারকাজের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে 'ভাইরাল' হয়ে গেছে। সবাই তার বীরত্বের প্রশংসা করেছেন। সোমবার (১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় তার এই সাহসিকতার জন্য সংবর্ধনা দিয়েছেন মুম্বাইয়ের মেয়র।

Add comment

Security code
Refresh