আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 27 মিনিট আগে

সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর আফরিন এখন পুরোপুরি তুর্কি বাহিনী ও ফ্রি সিরিয়ান আর্মি’র (এফএসএ) দখলে রয়েছে বলে দাবি করেছেন প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান। এতদিন কুর্দি গেরিলাদের নিয়ন্ত্রণে থাকা শহরটি দখলের পর সেখানে তুর্কি পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

erdogan turkey new

তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বলেন, স্থানীয় সময় রোববার সকাল সাড়ে আটটায় তুরস্ক সেনারা এবং এফএসএ যৌথভাবে পুরো শহরের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। এর আগে তিনি জানিয়েছিলেন, যে কোনো মুহূর্তে সুখবর দেবেন।

আফরিন শহরের পরিপূর্ণ নিয়ন্ত্রণে নেয়ার দাবি করেছে তুর্কি সশস্ত্র বাহিনীও। এক টুইটার বার্তায় তারা জানিয়েছে, তুর্কি সেনা বাহিনী ও তুরস্ক সমর্থিত ফ্রি সিরিয়ান আর্মি (এফএসএ) শহরটিতে পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করেছে।

এই দাবির স্বপক্ষে সেনাবাহিনী একটি ভিডিও শেয়ার করেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, আফরিনের প্রাণ কেন্দ্র সিটি সেন্টারে তুর্কি পতাকা উড়ছে। এফএসএ গেরিলাদের শেয়ার করা ভিডিওতেও একই চিত্র দেখা গেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, ফ্রি সিরিয়ান আর্মির যোদ্ধারা রাস্তায় রাস্তায় বিজয়ের সংকেত দেখিয়ে উল্লাস প্রকাশ করছেন, পতাকা উড়াচ্ছেন।

তবে শহরটিতে কুর্দিরা কোনো ধরনের বিস্ফোরক পুতে রেখে গেছে কিনা, তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে তুর্কি সেনাবাহিনী।

গত কয়েক দিন ধরে আফরিন অবরুদ্ধ থাকায় খাদ্য ও পানি সংকট চরম আকার ধারণ করে। সংঘর্ষের কারণে লক্ষাধিক মানুষ শহর ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে।

সিরিয়ার ওয়াইপিজি গেরিলা যোদ্ধাদের সন্ত্রাসী মনে করে তুরস্ক। সীমান্ত থেকে কুর্দি গেরিলাদের তাড়াতে গত ২০ জানুয়ারি থেকে ‘অপারেশন অলিভ ব্রাঞ্চ’ নামে সেনা অভিযান শুরু করে তুর্কি সেনাবাহিনী। প্রায় দুই মাসের এ অভিযানের মুখে টিকতে না পেরে পিছু হটতে বাধ্য হয় কুর্দিরা।

Add comment

Security code
Refresh