advertisement
আপনি দেখছেন

ক্ষমতাসীন ১৪ দলীয় মহাজোট সরকারের মন্ত্রিসভা থেকে বের হয়ে আসার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি। গতকাল মঙ্গলবার রাতে জাতীয় পার্টির সংসদীয় দলের সভায় সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্তটি গৃহীত হয়। পরে আজ বুধবার বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে দলের প্রেসিডিয়ামের সদস্য ও প্রেসিডেন্ট হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের রাজনৈতিক সচিব সুনীল শুভরায়।

jatiyo party japa

মন্ত্রীসভা থেকে বেরিয়ে আসার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেলেও কখন, কবে এবং কীভাবে বেরিয়ে আসবে সে বিষয়ে এখনো কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি জাতীয় পার্টি। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের রাজনৈতিক সচিব সুনীল শুভরায় বলেন, 'জাতীয় পার্টি সর্বসম্মতভাবে মন্ত্রীসভা থেকে বেরিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।'

বিগত কয়েক বছর ধরে মন্ত্রীসভা থেকে বেরিয়ে আসতে একাধিকবার আলোচনায় বসে জাপা নেতারা। পরে মন্ত্রীসভার শরিক কয়েকজন মন্ত্রীর কারণে সিদ্ধান্তটি চূড়ান্ত রূপ নেয়নি। তবে পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, 'কোন সরকারের মন্ত্রীসভায় শরিক থেকে বিরোধী দলের দায়িত্ব পালন হয় না।'

এ বিষয়ে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি বলেন, 'মন্ত্রিসভা থেকে বের হতে জাতীয় পার্টি সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দলীয় সভায় রওশন এরশাদ মন্ত্রিসভা থেকে বেরিয়ে আসার প্রস্তাব করেছেন। বিরোধীদলীয় নেত্রী বলেছেন, 'দলে থাকতে হবে না হলে দল ছেড়ে মন্ত্রীত্ব নিয়ে থাকতে হবে।' জাতীয় পার্টির অন্য এক সূত্র অনুযায়ী, 'মঙ্গলবার রাতে রওশন এরশাদের প্রস্তাবে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙা ও শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু একমত হন'।