advertisement
আপনি পড়ছেন

মৃত ভোটারদের তালিকা খুঁজে ফিরছে নির্বাচন কমিশন। এ জন্য দেশের প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশের (চৌকিদার) ধারস্থ হচ্ছে ইসি। মূলত বিশাল অঙ্কের অর্থের অপচয় রোধ এবং সুষ্ঠুভাবে স্মার্ট কার্ড বিতরণের স্বার্থেই চৌকিদারের সহায়তায় মৃত ভোটার খোঁজার অভিযানে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

natinal id card

গতকাল নির্বাচন কমিশন উপসচিব মো. আবদুল ওদুদ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে এই তথ্য। পাশাপাশি সচিবের স্বাক্ষরিত নির্দেশনা পত্রও দেশের সব উপজেলা এবং থানা নির্বাচন কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে বলে কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

পাঠানো নির্দেশনা পত্রে বলা হয়েছে, স্মার্ট কার্ডের সুষ্ঠু বিতরণের জন্য মৃত ভোটারের নাম বাদ দিতে ইউপির চৌকিদার বা গ্রামপুলিশদের দায়িত্ব দেয়ার সিদ্ধান্ত দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এটি বাস্তবায়ন করতে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তারা ইউনিয়নভিত্তিক মৃত ভোটারের সত্যায়িত কপি ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে পাঠাবেন। তারপর চেয়ারম্যানরা এ তালিকার একটি কপি চৌকিদারের কাছে পাঠাবেন। এরপর সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নে যেসব মৃত ভোটার এ তালিকাভুক্ত হয়নি তাদের নাম নির্ধারিত ছকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে জমা দেবেন। ইউপি চেয়ারম্যান নামগুলো যাচাই সাপেক্ষে মৃত্যু রেজিস্টারে রাখার ব্যবস্থা করবে এবং পূর্ণাঙ্গ তালিকার কপি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে পাঠাবেন বলে চিঠিতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

উপজেলা এবং থানা নির্বাচন কমিশন বরাবর পাঠানো ওই চিঠিতে আরো জানানো হয়েছে, চৌকিদার কর্তৃক মৃত ভোটারের তালিকা সংগ্রহের জন্য প্রতি ভোটার খুঁজে পাওয়ার পিছনে চৌকিদারকে দশ টাকা করে দেয়া হবে।

এ বিষয়ে ইসি জানিয়েছে, দেশের পনেরো কোটি মানুষের মধ্যে বাৎসরিক মৃত্যুর হার বিবেচনা অনুযায়ী ১২ থেকে ১৫ লাখ মৃত ভোটারের সন্ধান পাওয়া যেতে পারে। আমরা ভোটার তালিকা থেকে মৃত ভোটারের নাম বাদ দিতে কার্যকর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন 

আইএস-এর বিবৃতির অন্য উদ্দেশ্য থাকতে পারে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

গুসি শান্তি পুরস্কার পেলেন শাইখ সিরাজ

শিয়াদের উপর হামলা: দায় স্বীকার করেছে আইএস!