advertisement
আপনি দেখছেন

সম্প্রতি মিশরের শার্ম আল শেখ থেকে উড়ে যাওয়া একটি রুশ বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে ২২৪ জন নিহত হয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে বিমানে থাকা বোমার বিস্ফোরণেই বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। এ ঘটনার পর বিশ্বের কয়েকটি দেশের বিমানবন্দরে নিরাপত্তা জোরদার করার তাগিদ দিয়েছে ইংল্যান্ড। সেই তালিকায় আছে বাংলাদেশের নামও।

shah jalal international airport set to increase security

এরই মধ্যে একদল ইংলিশ নিরাপত্তা পর্যেবক্ষক বাংলাদেশের প্রধান বিমান বন্দর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের নিরাপত্তা পরিস্থিতি দেখেছে। তারা নানা পরামর্শ দিয়ে গেছেন। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে বৈঠকও করেছেন বৃটিশ হাইকমিশনার।

ইংলিশ পর্যবেক্ষক দলটি ঠিক কী কারণে বাংলাদেশে এসেছেন তা জানিয়ে সংবাদ মাধ্যমে বেসরকারি বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ‘বিমান চলাচলের নিরাপত্তা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতেই তারা এসেছেন। যাত্রাবাহী ও মালবাহী; উভয় ধরনের বিমানের নিরাপত্তাই তারা দেখেছেন।’

ইংলিশ দলটি সংবাদ মাধ্যমকে বলেছে, বিস্ফোরক দ্রব্য শনাক্ত এবং বিমানের খাদ্য সরবারের প্রক্রিয়াগুলো বিস্তারিতভাবে দেখেছেন তারা। তাদের পরামর্শ মেনে এর মধ্যেই নিরাপত্তা ব্যাবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

বিমান বন্দরে প্রবেশের সময় যাত্রীদের আগের তুলনায় আরো সতর্কভাবে তল্লাশী করা হচ্ছে। বিস্ফোরক শনাক্তের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে সর্বাধুনিক পদ্ধতি।

এ ছাড়া যাত্রীদের তল্লাশীর সময় ঘড়ি, বেল্ট ও জুতা খুলে দেখা হচ্ছে। আগে এটি ছিলো না। নিরাপত্তা জোরদারের পরামর্শের এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে ডগ স্কোয়াডও। সব মিলিয়ে আন্তর্জাতিক মানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকলেও, তা আরো সুদৃঢ় করা হয়েছে।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন

গাড়ি চালকদের নূন্যতম যোগ্যতা হবে এসএসসি: আদালত

চিনি আমদানিতে ভ্যাট, বাড়বে চিনির দাম

sheikh mujib 2020