advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

রোকেয়া হলের নির্বাচনে কারচুপি ও অনিয়ম হয়েছে। সে হিসেবে অধ্যাপক ড. জিনাত হুদার প্রভোস্ট হিসেবে থাকার নৈতিক অধিকার নেই। তাকে অবশ্যই পদত্যাগ করতে হবে বলে হুশিয়ারি দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর। বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) দুপুর দেড়টায় রোকেয়া হলের অনশনরত ছাত্রীদের সমর্থনে এসে তিনি এ মন্তব্য করেন।

nurul haque vp

এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হল সংসদ নির্বাচনে পুনঃনির্বাচন ও হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক জিনাত হুদার পদত্যাগের দাবিসহ চার দফা দাবিতে অনশন করছেন পাঁচ ছাত্রী। বুধবার রাত ৯টা থেকে হলের প্রধান ফটকে তারা এ অনশন শুরু করেন।

অনশনকারী ছাত্রীরা অভিযোগ করেন, রাতে অনশনে বসার পর ছাত্রলীগের একদল নেতাকর্মী এসে তাঁদের হুমকি দিয়ে গেছেন। এ সময় তাদের হাতে ছাত্রীরা হেনস্তার শিকার হয়েছেন বলেও অভিযোগ করা হয়েছে। এমনকি তাদেরকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের জন্য প্রক্টরকে বলবেন বলেও হুমকি দেয়া হয়।

এ সময় শিক্ষার্থীরা ‘কারচুপির নির্বাচন- মানি না, মানব না’, ‘প্রহসনের নির্বাচন- মানি না, মানব না’, ‘অবিলম্বে প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগ- করতে হবে, করতে হবে’ স্লোগান দেন। পরে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে থামাতে ঘটনাস্থলে আসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও রোকেয়া হলের প্রভোস্ট। এ সময় তারা ছাত্রীদের শান্ত হয়ে রুমে ফিরে যাবার আহ্বান জানালে আন্দোলন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেয়া হয়।

এর পরদিন গতকাল বুধবার দিনভর আন্দোলন হলে রোকেয়া হলে। এর অংশ হিসেবে রাত ৯টা থেকে অনশন শুরু করেন পাঁচ ছাত্রী।

এ বিষয়ে রোকেয়া হলের প্রগতিশীল ছাত্রজোটের ভিপি প্রার্থী মুনিরা দিলশাদ ইলা বলেন, শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করলেও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কোনো খোঁজ নেয়নি। এমনকি ফোন দেয়া হলেও তারা ফোন ধরেননি।

sheikh mujib 2020