advertisement
আপনি দেখছেন

এগারো বছরের ছেলেকে সাথে নিয়ে ডিনস এভিনিউয়ের আল নূর মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন রাহিমি আহমাদ। মসজিদে যখন খুতবা চলছিলো তখনও আপন মনে মসজিদের বাগানে খেলা করছিলো ছোট্ট বাচ্চাটি। ঠিক এমন সময়ই মসজিদে হামলা করে বন্দুকধারীরা।

newzealand mosque

আজ শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হেগলি ওভাল মাঠের নিকটবর্তী আল-নুর মসজিদে মুসল্লিদের ওপর হামলা চালিয়েছে একজন খ্রিস্টান জঙ্গি। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪৯ জন নিহত এবং ৪৮ জন আহত হয়েছে।

গুলি শুরু হওয়ার পর রাহিমির ছেলেটিকে আড়ালে টেনে নিয়ে রক্ষা করেন স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা। তবে রাহিমি এখনও ফিরে আসেনি। কেউ জানে না তার ভাগ্যে কী ঘটেছে।

রাহিমির স্ত্রী আজিলা খুব ভয়ের সাথে স্বামীর জন্য অপেক্ষা করছেন। তিনি জানেন যে, ভাগ্যে যে কোনো কিছুই ঘটতে পারে। কিন্তু খারাপ কিছু শোনার জন্য তিনি মোটেও প্রস্তুত নন।

আজিলা বলেন, রাহিমি সাথে মোবাইল ফোন নিয়েই মসজিদে গিয়েছিলো। কিন্তু ঘটনার পর থেকে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। সে নিজেও ফিরে আসছে না।

ছেলেকে ফেরত পেয়েও ভীষণ খুশি আজিলা। কিন্তু এখন স্বামীকে ফেরত চান তিনি।

ঘটনার আকস্মিকতায় ১১ বছরের ছেলেটি অনেকটাই নির্বাক। তখন থেকেই কান্না করতে থাকা ছেলেটি বাবাকে খুঁজছে শুধু। সে জানে না, তার বাবা কখন ফেরত আসবে...