আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 57 মিনিট আগে

নিউজিল্যান্ডের মতো উন্নত ও শান্তিপ্রিয় দেশে হওয়া উপর্যুপরি হামলার ঘটনা বাংলাদেশেও ঘটা সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

information minister hasan mahmud 2019

তিনি বলেন, ‘সবচেয়ে আশ্চর্যজনক যে হামলাকারী আগে থেকেই তার পরিকল্পনা ও ঘৃণা-বিদ্বেষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেছিলেন। এমনকি শুরু থেকে হামলা পরিচালনার ঘটনাও তিনি লাইভ দিয়েছিলেন। আঠারো মিনিট ধরে পাখি শিকারের মতো মানুষ হত্যার লাইভ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া হলো।’

‘একটি মসজিদের পর আরেকটি মসজিদে হামলা হলো, কিন্তু পুলিশ সেখানে পৌঁছাতে পারল না। এটি অত্যন্ত হৃদয়বিদারক ও দুঃখজনক। আমাদের দেশেও এমন উপর্যুপরি হামলা করা সম্ভব নয় বলে আমি মনে করি,’ যোগ করেন তিনি।

শনিবার রাজধানীর গুলিস্তানে মহানগর নাট্যমঞ্চ হলে ঢাকা মানবাধিকার সম্মেলনে যোগদান শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ নিউজিল্যান্ডে নৃশংস হামলার দ্রুত ও পূর্ণ তদন্ত দাবি করেন।

তিনি নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদে হামলায় বাংলাদেশিসহ অন্য নিহতদের জন্য গভীর শোক, আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সদস্যরা প্রাণে রক্ষা পাওয়ায় সৃষ্টিকর্তার কাছে পরম কৃতজ্ঞতা প্রকাশ ও এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এ নৃশংস হামলার নিন্দা জানানোর ভাষা নেই। আমরা নিউজিল্যান্ডকে শান্তির দেশ হিসেবে জানতাম। সেখানে মসজিদের মধ্যে প্রার্থনারত নিরীহ মানুষের ওপর নির্বিচারে গুলি চালিয়ে হত্যার ঘটনা অত্যন্ত হৃদয়বিদারক ও নিন্দনীয়।’

জাতীয় ক্রিকেট দলের নিরাপত্তায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘অত্যন্ত চিন্তার বিষয় যে তারা পাঁচ মিনিট আগে সেখানে পৌঁছালে কী ঘটনা ঘটতো! যেখানে আমাদের জাতীয় ক্রিকেট দল তাদের জাতীয় দলের সাথে খেলতে গেছে, সেখানে তাদের পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘মানবিক মূল্যবোধে অনেক পশ্চিমা দেশ থেকে আমরা এগিয়ে আছি, তাই পশ্চিমাদের অন্ধ অনুকরণ নয়। তারা ভৌত ও অবকাঠামোগত দিক দিয়ে উন্নততর হলেও, পারিবারিক ও সামাজিক মূল্যবোধে আমরা তাদের থেকে উন্নত ও বেশি ধনী।’

এর আগে বেসরকারি সংস্থা বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন আয়োজিত অনুষ্ঠানে সংস্থার কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভাপতি কাজী রেজাউল মোস্তফার সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন- বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান হাফিজ আহমেদ মজুমদার, কানিজ ফাতেমা আহমেদ ও সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব সাইফুল ইসলাম দিলদার।