advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে বন্দুকধারীর সন্ত্রাসী হামলায় ৫০ জন নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে চার জন বাংলাদেশি রয়েছেন। আজ রোববার সকালে প্রকাশিত এক বেসরকারি তালিকায় এ তথ্য উঠে এসেছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশ হাই কমিশনের উপ-প্রধান তারেক আহমেদ। তবে জাকারিয়া ভুঁইয়া নামে আরেক বাংলাদেশি এখনো নিখোঁজ রয়েছেন।

two bangladeshi killed in new zealand mosque attack 10 hurt

তারেক আহমেদ জানান, নিহত বাংলাদেশিরা হলেন ড.আবদুস সামাদ, হুসনে আরা পারভীন, মোজাম্মেল ও ওমর ফারুক। তাদের মধ্যে ড. সামাদ ও পারভীন নিউজিল্যান্ডের নাগরিক। আর মোজাম্মেল ও ওমর বাংলাদেশি নাগরিক।

জাকারিয়া ভুঁইয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘তার ভাগ্যে কী ঘটেছে, আমরা তা জানি না। তাকে চেনেন এমন একজনকে নিয়ে আজ সকালেও আমি মর্গে আছি। সেখানে তার মরদেহ আছে কিনা, তা নিশ্চিত হতে ওই ব্যক্তিকে মর্গে ডুকতে দেয়ার জন্য পুলিশকে অনুরোধ জানিয়েছি। আশা করছি, পুলিশ তাকে মর্গে ঢোকার অনুমতি দেবে।’

new zealand mosque attack tamim

শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টায় জুমার নামাজের সময় হওয়া এ হামলা আরো ৪৪ জনের বেশি আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে তিন জন বাংলাদেশিও আছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এ বিষয়ে কূটনতিক তারেক আহমেদ জানান, গুরুতর আহত একজনের নাম লিপি। তার শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক। আজ তার অপারেশন হবে। অপর দুই জন আহত রুবেল ও মোতাচ্ছের বর্তমানে ভালো আছেন।

এদিকে নিহতদের লাশ দেশে আনতে চাইলে পূর্ণ সহায়তার কথা জানিয়েছে নিউজিল্যান্ড কর্তৃপক্ষ। এরই মধ্যে মোজাম্মেল ও ওমর ফারুকের লাশ দেশে নেয়ার ব্যাপারে আত্মীয়-স্বজন আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বলে জানিয়েছেন তারেক আহমেদ।

এর আগে শনিবার এ হামলায় দুই বাংলাদেশি নিহতের খবর নিশ্চিত করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। তিনি বলেন, ‘হামলায় ১০ বাংলাদেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। দুজন নিহত হয়েছেন। আরও তিনজন নিখোঁজ রয়েছেন।’

তবে ভয়াবহ এ হামলা থেকে অল্পের জন্য বেঁচে যান নিউজিল্যান্ড সফরে থাকা বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রা। হামলার সময় তাদের কয়েক জন আক্রান্ত ওই মসজিদেই জুমার নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন। এ সময় অজ্ঞাত এক নারী মসজিদে গোলাগুলির খবর দিয়ে সেখানে প্রবেশ করতে বারণ করেছিলেন। পরে ক্রিকেটাররা দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

ব্রেনটন ট্যারেন্ট নামে ২৮ বছর বয়সী এক অস্ট্রেলিয়ান-বংশোদ্ভূত শ্বেতাঙ্গ যুবক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লাইভে এসে মসজিদে হামলা চালায়। ১৭ মিনিট ধরে হামলার লাইভ ভিডিও প্রচারিত হয়। এ সময় তাকে বলতে শোনা যায়, মুসলমান, আজ তোদের সবাইকে খুন করব।

sheikh mujib 2020