advertisement
আপনি দেখছেন

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায় জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জয়নাল আবেদীনের (৫০) রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার ভোরে উপজেলার ধোলাইপাড় ত্রিমুখী রাস্তার পাশে থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের দোকান কর্মচারীসহ সন্দেহভাজন চারজনকে আটক করা হয়েছে।

zainal abedin al

নিহত মো. জয়নাল আবেদীন উপজেলার জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামের মো. মুসলিম উদ্দিনের ছেলে। নিহতের পরিবারের অভিযোগ, সম্প্রতি উপজেলা নির্বাচন পরবর্তী রাজনৈতিক মতবিরোধকে কেন্দ্র করেই এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে।

আটক ব্যক্তিরা হলেন- একই এলাকার মানিক মিয়ার ছেলে মো. সেলিম মিয়া (২৬), মো. ফেরদৌস মিয়ার ছেলে মো.সাগর মিয়া (১৭), ডা. মোতালিবের ছেলে শাহিন শাহ (৪০) ও নিহতের কর্মচারী জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার মো. রবি মিয়া (২৫)।

স্থানীয়দের বরাতে পুলিশ জানায়, সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে নিহত জয়নাল আবেদীন গ্রামের পাশে তার নিজ দোকান থেকে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিতে যান। এ সময় দুর্বৃত্তরা দোকানের সামনে থেকে তুলে নিয়ে একই ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের ধোলাইপাড় ত্রিমুখী রাস্তায় কুপিয়ে হত্যা করে ফেলে যায়। মঙ্গলবার ভোরে ধোলাইপাড় ত্রিমুখী রাস্তার পাশে লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়।

খবর পেয়ে সুনামগঞ্জ পুলিশ সুপার মো. বরকতুল্লাহ খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. হায়াতুনবী ও সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোঃ শহীদুল্লাহ’র নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে এবং স্বজনসহ স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলেন এবং আলামত সংগ্রহ করেন।

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মো. বরকতুল্লাহ খান জানান, এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। এই ঘটনায় সন্দেহভাজন ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। ইউএনবি।