advertisement
আপনি দেখছেন

বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের জন্য কমবেশি সবাইকে ঘুষ দিতে হয়। টাকা ছাড়া সহজে মেলেনা ভেরিফিকেশন। তবে অপাত্রে ঘুষ চেয়ে বেকায়দায় পড়েছেন এক পুলিশ কর্মকর্তা। পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের জন্য বিচারপতির স্ত্রীর কাছে ঘুষ চাওয়ার অপরাধে দায়ের করা এক মামলায় পুলিশের এক এএসআইকে দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

police logo 19

বৃহস্পতিবার ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ জজ শেখ হাফিজুর রহমান এই রায় ঘোষণা করেন। স্পেশাল ব্রাঞ্চের (এসবি) দণ্ডপ্রাপ্ত ওই সহকারী উপপরিদর্শকের (এএসআই) মো. সাদেকুল ইসলাম। রায় ঘোষণার পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এই ঘটনায় দায়ের করা মামলার এজহার থেকে জানা গেছে, '২০১৬ সালে রাজধানীর ধানমণ্ডির এক বাসায় গিয়ে পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের জন্য ড. সাবরিনা মুনাজিলিন নামের এক নারীর নিকট ২ হাজার টাকা দাবি করেন এএসআই সাদেকুল ইসলাম। তিনি আসলে জানতেন না যে ওই সাবরিনা বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের সহধর্মিনী।

পুলিশের ঘুষ দাবির প্রেক্ষিতে ওই বছরের ৩১ আগস্ট সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল অফিসার হোসনে আরা আক্তার ধানমণ্ডি থানায় একটি মামলা করেন। পরে তদন্তের পর ২০১৭ সালের ২৬ এপ্রিলে সাদেকুল ইসলামের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়। চার্জশিট করেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপপরিচালক রহিমা খাতুন।

সর্বশেষ ২০১৮ সালের ৮ অক্টোবর এই মামলার বিচার শুরু হয়। পরে বৃহস্পতিবার মামলার ঘোষিত রায়ে জামিনে থাকা এএসআই সাদেকুল ইসলামের জামিন বাতিল করে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। মামলার পর থেকেই তিনি সাময়িক বরখাস্ত ছিলেন।