advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 10 মিনিট আগে

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য তোফায়েল আহমেদ বৃহস্পতিবার বলেছেন, আগামী ৫ বছরে বিএনপি বাংলাদেশের রাজনীতি থেকে বিলীন হয়ে যাবে।

tofael ahmed al 2018

তিনি বলেন, ‘বিএনপির রাজনীতি ভুলে ভরা। ২০০১ সনের পর মানুষকে নির্যাতন করেছে। মা-বোনের ইজ্জত লুট করেছে। সুস্থ সবল মানুষের চোখ তুলে নিয়েছে। বর্তমান রাষ্ট্রপতিকেও ওই সময় ভোলায় এসে সভা করতে তারা দেয়নি। এজন্য মানুষ তাদের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। আগামী ৫ বছরে বিএনপি বাংলাদেশের রাজনীতি থেকে মুসলিম লীগ, ভাসানী ন্যাপ এবং বিলুপ্ত প্রাপ্ত অন্যান্য দলের মতো বিলীন হয়ে যাবে।’

দুপুরে ভোলা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ভোলায় আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সাথে ৫ দিনব্যাপী মতবিনিময় সভার প্রথম দিন তিনি এসব কথা বলেন।

সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আজ তারা (বিএনপি) দেশে বিদেশে ষড়যন্ত্র করছে। কিন্তু ষড়যন্ত্র করে কোনো লাভ নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা করে প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার চেষ্টা করেছিল। হামলায় আইভি রহমানসহ ২৪ জন মৃত্যুবরণ করেছে। সেই মামলায় অনেকের ফাঁসির হুকুম হয়েছে। অনেকের যাবজ্জীবন সাজাও হয়েছে। তার মধ্যে খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমান একজন। যেই লোকটা খুনের মামলার আসামি, তাকে বানিয়েছে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান।’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির পরাজয় সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘তারেক রহমান দলের নেতাদের নমিনেশন দেয়ার জন্য ইন্টারভিউ নিয়েছে। যে টাকা বেশি দিয়েছে সে মনোনয়ন পেয়েছে। যে পরীক্ষিত বিএনপি নেতা টাকা দেয়নি, সে মনোনয়ন পায়নি। যার ফল হলো বিএনপি মাত্র ছয়টা আসনে বিজয়ী হয়েছে। এইভাবে এক দিন বিএনপি বিলীন হয়ে যাবে।’

বর্ষীয়ান এই নেতা বলেন, ‘বিএনপি অর্থের বিনিময়ে দলীয় মনোনায়ন দেয়, মানুষকে খুন করে। যেই দলের নেত্রী দুর্নীতি মামলার আসামি হয়ে জেলে, যাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি, সেই দলকে মানুষ কখনো ভোট দেয় না।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকারের আমলে ভোলায় ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। মৃত্যুর আগের দিন পর্যন্ত আমি আপনাদের সাথে থাকব।’

ভোলা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোশারেফ হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন- জেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মমিন টুলু, উপজেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক নজরুল ইসলাম গোলদার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইউনুছ, জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম নকিব, শিবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন, আলী নগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বশির আহমেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল ইসলাম প্রমুখ।

sheikh mujib 2020