advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

অনেক জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে আজ শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ ডাকসুর ভিপি হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুর। এছাড়াও জিএস গোলাম রাব্বানী ও এজিএস হিসেবে সাদ্দাম হোসাইনরা দায়িত্ব নিয়েছেন। তবে ডাকসুর প্রথম কার্যকরী সভায় একটি প্রস্তাবে আপত্তি জানিয়েছেন ভিপি নুর।

nurul haque vp

শনিবার প্রথম নির্বাহী বৈঠকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) নির্বাচিত নেতারা আগামী এক বছরের জন্য নিজ দায়িত্ব গ্রহণ করেন। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ডাকসু ভবনের প্রথম তলায় হল কক্ষের বৈঠকটি শুরু হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান। দুপুর দেড়টার দিকে বৈঠকটি শেষ হয়।

ডাকসুর প্রথম সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসেদের (ডাকসু) আজীবন সদস্য করার প্রস্তাব করেন নবনির্বাচিত আন্তর্জাতিক সম্পাদক শাহরিমা তানজিনা অর্ণি। প্রস্তাবটিতে আপত্তি জানান ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর ও সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেন। তবে ডাকসুর ২৫ সদস্যের মধ্যে বাকি ২৩ জন প্রস্তাবে সমর্থন দেন।

আপত্তির কারণ হিসেবে নুরুল হক নুর বলেন, 'আমরা শুরু থেকেই বলছি এই নির্বাচন নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। সে জায়গা থেকে আমি মনে করি না যে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আজীবন সদস্য পদ প্রদান করা উচিত। প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত সম্মানীয় ব্যক্তি। রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ নির্বাহী প্রধান। সুতরাং ডাকসুর আজীবন সদস্য পদ দেয়াটা তার জন্য বড় কিছু নয়।'

তিনি বলেন, 'ডাকসুর এই নির্বাচন ঘিরে বিতর্কিত একটি অবস্থান রয়েছে, আমরা যখন দায়িত্ব নিচ্ছি তখন শিক্ষার্থীরা, আমার ভাইয়েরা-বোনেরা পুননির্বাচনের দাবিতে বিক্ষোভ করছেন, মিছিল করছেন। কাজেই বিতর্কিত নির্বাচনের মাধ্যমে যে ডাকসু, সেখানে তার মতো সম্মানিত ব্যক্তিকে সদস্য করা ঠিক হবে না।' তার কথাকে সমর্থন জানান সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক আখতার হোসেন।

এ ব্যাপারে রাব্বানী বলেন, ‘আমাদের কেন্দ্রীয় ডাকসুর ২৫ সদস্যের যে বডি রয়েছে সেখানে ২৩ জন সরাসরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আজীবন সদস্য হওয়ার বিষয়টি সমর্থন করেছেন। শুধুমাত্র ভিপি নুর দ্বিমত পোষণ করেছেন। সুতরাং গণতান্ত্রিকভাবে ভিপি নুরের বক্তব্য গ্রহণযোগ্য হয়নি। ইতোমধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে সদস্য পদ দেয়ার সিদ্ধান্তটি গৃহীত হয়েছে। এটিকে সলভ ইস্যু বলা যায়।’

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) ও ডাকসুর সভাপতি অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আজীবন সম্মাননা সদস্য করার প্রস্তাবটি এসেছে। সকলে এ বিষয়ে সহমত জ্ঞাপন করেছেন। প্রস্তবটি ধন্যবাদের সঙ্গে গ্রহণ করা হয়েছে। আনুষ্ঠানিকভাবে পরবর্তী সভায় গঠনতন্ত্র দেখে মহৎ উদ্যোগটি গ্রহণ করা হবে।'

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ ২৮ বছর পর গত ১১ মার্চ বহুল প্রতীক্ষিত ডাকসু ও হল সংবদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেই নির্বাচনের দিন বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে ছাত্রলীগ ছাড়া অন্য সব প্যানেল নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়ে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানায়। তবে নির্বাচনে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ আনলেও শনিবার ডাকসুর ভিপি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুর ও সমাজসেবা সম্পাদক পদে বিজয়ী আখতার হোসেন।

sheikh mujib 2020