advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 33 মিনিট আগে

সম্প্রতি রাজধানীর প্রগতি সরণিতে বাসের চাপায় এক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র প্রাণ হারান। এরপর পুরো শহরেই নিরাপদ শহরের দাবিতে আন্দোলনে নামেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এক পর্যায়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষে অনুরোধে আন্দোলন দশ দিনের জন্য স্থগিত করা হয়। কিন্তু আন্দোলনের মধ্যেই এবার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের শেরপুরে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে এক শিক্ষার্থীকে হত্যা করার ঘটনা ঘটেছে।

washim afnan

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিকৃবি) নিহত ওই ছাত্রের নাম ওয়াসিম আফনান। তিনি সিকৃবির বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের চতুর্থ বষের ছাত্র। তার দেশের বাড়ি হবিগঞ্জে নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের রুদ্র গ্রামে। বাবার মো. আবু জাহেদ মাহবুব এবং মা ডা. মীনা পারভীন।

তার সহপাঠী এবং প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রথমে তাকে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়া হয় এরপর বাসটির চালক ও তার সহকারী যোগসাজশ করে তার উপর দিয়ে গাড়ি উঠিয়ে দিয়ে তাকে নির্মমভাবে হত্যা করে। শনিবার বিকাল ৫টার দিকে সিলেট-ময়মনসিংহ রোডের উদার পরিবহন নামের একটি বাসের চালক ও হেলপার এই হত্যাকাণ্ডটি ঘটায়। 

সূত্র বলছে, প্রথমে ওয়াসিমকে বাস থেকে ফেলে দেয় হেলপার। পরে তার ওপর দিয়ে সরাসরি বাস উঠিয়ে দেন চালক। ঘটনাস্থলেই মারা যান ওয়াসিম। তার লাশ বর্তমানে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রয়েছে।

সহপাঠী হত্যার খবর পেয়ে রাত পৌনে ৮টায় সিকৃবির ছাত্ররা ওসমানী হাসপাতালে যান। এরপর উত্তেজিত শিক্ষার্থীরা বাসচালক ও হেলপারের শাস্তি দাবিতে বিক্ষোভ করেন। এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

sheikh mujib 2020