advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

রাজধানীর আফতাবনগর এলাকায় বৃহস্পতিবার ভোররাতে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই ব্যক্তি নিহতের কথা জানিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। পুলিশ বলছে, নিহত একজনের নাম টারজান মনির ও অন্যজনের নাম শাহ আলী ওরফে শাহেন শাহ। এদের মধ্যে মনির কুখ্যাত সন্ত্রাসী গ্রুপ ‘টারজান বাহিনীর’ শীর্ষ নেতা ও শাহ আলী তার সহযোগী।

gunfight new

ডিবি পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর) মশিউর রহমানের ভাষ্য, মাদক কেনাবেচার গোপন খবর পেয়ে ডিবি পুলিশের একটি দল আফতাবনগর এলাকায় অভিযানে যায়।

ভোর পৌনে পাঁচটার দিকে ডিবি পুলিশ একটি মাইক্রোবাসকে থামানোর ইঙ্গিত দেয়। সেসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের লক্ষ্য করে সন্ত্রাসীরা গুলি ছুড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়।

একপর্যায়ে টারজান ও শাহ আলী গুলিবিদ্ধ হয়। পরে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

পুলিশের দাবি, ঘটনাস্থল থেকে চারটি পিস্তল, চারটি ম্যাগাজিন, ১.৫ মণ গাঁজা ও ১৪ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে মাইক্রোবাসের চালক ছোট মনির ও শাহাদাত নামে আরেকজনকে আটকের কথা জানিয়েছে পুলিশ।

মশিউর রহমানের ভাষ্য অনুযায়ী, গত ১৯ মার্চ আফতাবনগর এলাকায় মাদকের টাকা ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে শত্রুতার জেরে নিজ বাসার সামনে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন জুলহাস হোসেন। এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিলেন ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত টারজান ও শাহ আলী। ইউএনবি।

sheikh mujib 2020