advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

বনানীর এফআর টাওয়ারে এখনও যারা আটকা পড়ে আছেন তাদের উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের বেশ কয়েকটি ল্যাডার আনা হয়েছে। তবে ফায়ার সার্ভিসের একটি ক্রেন আটকা পড়া মানুষদের উদ্ধারে বেশ কার্যকর ভূমিকা রেখেছে। মূলত উদ্ধার অভিযানে এটি যোগ দেয়ার পরই উদ্ধার কাজে গতি আসে।

fire crane banani

ক্রেনের মাধ্যমে এখন পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা বিশের অধিক মানুষকে উদ্ধার করেছে বলে জানা গেছে। ক্রেনটি প্রতিবার পাঁচ থেকে সাত জন করে আটকা পড়া মানুষকে ভবন থেকে নিচে নামিয়ে আনছে।

এদিকে এখনও যারা ভবনে আটকা পড়ে আছেন তারা ভবনের বিভিন্ন জানালা থেকে মোবাইল ফোনের ফ্ল্যাশলাইট জ্বালিয়ে নিচে থাকা উদ্ধারকর্মীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরাও একের পর এক আটকা পড়া মানুষকে উদ্ধারে এগিয়ে যাচ্ছে।

crane fire service

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা ৫০ মিনিটের দিকে এই আগুন লাগে। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ১৭টি ইউনিট বর্তমানে কাজ করছে বলে জানা গেছে। ভবনটির ভেতরে অনেক মানুষ আটকা পড়ে আছে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষ্যদর্শীরা।

এদিকে আগুন থেকে বাঁচতে ভবনের উপরের কয়েকটি তলা থেকে কয়েকজন লাফিয়ে পড়েছেন। নিচে তাদেরকে নিরাপদভাবে গ্রহণ করার কোনো ব্যবস্থা না থাকলেও ধোঁয়া ও আগুন আতঙ্কে তারা এই কাজটি করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এনায়েত হোসেন জানান, এফআর টাওয়ারের ৯ তলা থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে আগুন লাগার কারণ তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

sheikh mujib 2020