advertisement
আপনি দেখছেন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) হলের ছাত্র ফরিদ হাসানকে রক্তাক্ত করার ঘটনায় মঙ্গলবার বিকালে হল প্রশাসনকে লিখিত অভিযোগ জানাতে যায় ভিপি নুরসহ বিভিন্ন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে নুরসহ অন্যান্যদের ওপর হামলা ও ছাত্রীদের ডিম মারারও অভিযোগ উঠেছে। লাঞ্চিত করা হয় শামসুর নাহার হল সংসদের ভিপি শেখ তাসনিম আফরোজ ইমিকে।

emi

ঘটনার পরেই শেখ তাসনিম আফরোজ ইমি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এ ঘটনার প্রতিবাদ করে স্ট্যাটাস দেন। ইমি ফেসবুকে লেখেন, 'এস এম হলের বেজন্মারা শুধু ফরিদকে রক্তাক্ত করেই ক্ষান্ত হয়নি, আমরা যারা প্রভোস্টের কাছে স্মারকলিপি দিতে গিয়েছিলাম, তাদের উপর হামলা করেছে। ডাকসুর ভিপি, সমাজসেবা সম্পাদককে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। মেয়েদের লাঞ্চিত করেছে।'

তিনি লেখেন, 'আমাদের গায়ে ডিম ছুঁড়েছে। আমার গায়ে ডিম ছুঁড়েছে। এর শেষ না দেখে ছাড়ছিনা এবার আর। একজন নির্বাচিত হল সংসদের ভিপির সাথে যা করেছে ওরা, তার বিচার করতে হবে। এই বেজন্মারাই একটা ক্যালকুলেটরের জন্য আহসানের চোখ গেলে দিয়েছিল।'

আরেক স্টাটাসে ইমি অভিযোগ করেন, 'প্রোক্টর স্যারের সাথে যোগাযোগ করার অনেক চেষ্টা করেছি। তিনি আমার ফোন রিসিভ করেননি। অন্য একজনকে দিয়ে ফোন দেয়ালে সেই ফোনও কেটে দিয়েছেন। এ ঘটনা অবশ্য আমার ক্ষেত্রে নতুন নয়! যারা আজকে আমার সাথে, আমাদের সাথে এই ব্যবহার করল, ওরা ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত আমি আজ রাতে এস এম হলের গেট থেকে যাব না। প্রয়োজনে সারারাত বসে থাকব। আমি ভেতরে যখন এস এম হল ছাত্রলীগের সেক্রেটারি তাপসকে জিজ্ঞেস করলাম আমার গায়ে ডিম কেন মেরেছে, সে উল্টো আমাকে ধমকিয়েছে। ওরা ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত আমি এস এম হলের গেট থেকে যাব না। প্রয়োজনে সারারাত বসে থাকব।'