আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 45 মিনিট আগে

ট্রাফিক আইন ভঙ্গ করে বিপজ্জনকভাবে রাস্তা পার হলে 'শাস্তি স্বরূপ' এক ঘণ্টার কাউন্সিলিং করানো হবে। ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক উত্তর বিভাগ এই কার্যক্রম চালু করেছে। রাজধানীর বনানীতে আজ এই কার্যক্রমটি পরিচালনা করে ডিএমপি।

traffic police counseling

যারা ফুট ওভারব্রিজের পরির্বতে সড়ক দিয়ে বিপজ্জনকভাবে রাস্তা পার হওয়ার চেষ্টা করেন তাদেরকে ধরে এনে বনানীর এয়ারপোর্ট সড়কে অবস্থিত পুলিশ বক্সে ট্রাফিক আইন সম্পর্কে এক ঘণ্টার কাউন্সিলিং সেবা দেয়া হয়।

কাউন্সিলিং ক্লাসে তাদেরকে সড়ক আইন সম্পর্কে জ্ঞান দেয়া হয় এবং সচেতনতামূলক বিভিন্ন লিফলেট পড়তে দেয়া হয়। এছাড়া ট্রাফিক বিভাগের সদস্যরা মৌখিকভাবেও বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ট্রাফিকের উত্তর বিভাগের উপ পুলিশ কমিশনার প্রবীর কুমার রায়। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, সড়ক নিরাপদ করতে হলে সবাইকে সচেতন ও আন্তরিক হতে হবে। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা একটু কষ্ট এড়াতে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই সড়ক পার হন। কিন্তু কাছেই ফুট ওভারব্রিজ থাকলেও সেগুলো তারা ব্যবহার করেন না। তাই আমাদের বিভাগ থেকে এই উদ্যোগ।

বিপজ্জনক রাস্তা পারাপারের জন্য পথচারীদের জরিমানা করেও কোনো লাভ হয়নি জানিয়ে তিনি বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে পথচারীদের জরিমানা করেও সমস্যার সমাধান না হওয়ায় আমরা ভিন্ন কিছু চেষ্টা করেছি। আশা করছি, মাত্র দুই মিনিট সময় সাশ্রয় করতে গিয়ে যারা একবার এমন ঘণ্টাব্যাপী কাউন্সিলিং ক্লাসে এসেছেন তারা আর দ্বিতীয়বার এই কাজ করবেন না।

পুলিশের এই উদ্যোগ সম্পর্কে পথচারীরাও সন্তোষ প্রকাশ করেন। অনেকেই স্বীকার করেন যে, এখন তারা চাপে পড়ে হলেও ওভারব্রিজ ব্যবহার করবেন।