advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 48 মিনিট আগে

মামলা প্রত্যাহারসহ ৪ দফা দাবিতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ার সেল নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। আজ রোববার দুপুর ১২টার পরে এ ঘটনা ঘটে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উভয় পক্ষের মধ্যে থেমে থেমে সংঘর্ষ চলছিল।

chittagong university bsl clashes

এর আগে আজ সকাল সাড়ে ৭টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক আটকে রেখে অবরোধ কর্মসূচি শুরু করে ছাত্রলীগের একাংশের নেতাকর্মীরা। অন্যদিকে অবরোধের শুরুতেই বিশ্ববিদ্যালয়গামী শাটল ট্রেন আটকে চালককে ট্রেন থেকে নামিয়ে দেয়া হয়। এ সময় ট্রেনের কয়েকটি বগির হোস পাইপ কেটে দেয়া হলে শাটল ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এছাড়া চট্টগ্রাম-ঢাকা রেল রুটও অবরোধ করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এতে বিপাকে পড়েছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, দুপুর ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অবরোধ তুলে নেয়ার আহ্বান জানায়। কিন্তু তাতে সাড়া না দিয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেয়। পরে পুলিশ এসে তাদের উঠিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।

chittagong university bsl clashes 1

এ সময় পুলিশ টিয়ার গ্যাসের মুখে টিকতে না পেরে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক থেকে সরে শাহ আমানত ও সোহরাওয়ার্দী হলের সামনে অবস্থান নেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সেখান থেকে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ক্যাম্পাস থেকে শিক্ষকদের কোনো বাস শহরে যেতে পারেনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন পুলে থাকা ৩০টি বাস ও গাড়ির চাকা কেটে দেয়া হয়েছে। বন্ধ রয়েছে সিএনজি চালিত অটোরিকশাও।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম রেলওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘আন্দোলনের কারণে শাটল ট্রেনের চলাচল আপাতত বন্ধ রয়েছে।’

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ ইলিয়াস বলেন, ‘চার দফা দাবি আদায়ে অবরোধ কর্মসূচি চলছে। দাবি না মানা পর্যন্ত এ আন্দোলন চলবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের রুটে ট্রেন ও যান চলাচল বন্ধ থাকবে।’

sheikh mujib 2020