advertisement
আপনি দেখছেন

মালয়েশিয়ায় শ্রমিকদের বহনকারী একটি বাস খাদে পড়ে পাঁচ বাংলাদেশিসহ ১৪ জন নিহত হয়েছেন। রবিবার রাতে কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত পাঁচ বাংলাদেশির মধ্যে দুজন চাঁদপুর, দুজন কুমিল্লা ও একজন নোয়াখালীর বাসিন্দা।

died five bangladeshi

তারা হলেন- চাঁদপুরের হাজিগঞ্জ উপজেলার দেবপুর ৪ নং ওয়ার্ডের মো. আনোয়ারের ছেলে মো. সোহেল (২৪) ও ফরিদগঞ্জ উপজেলার চরভাগল ৩ নং ওয়ার্ডের মো. আমির হোসেনের ছেলে আল আমিন (২৫), কুমিল্লার লাকসাম উপজেলার দুরলবপুর গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে মহিন (৩৭) ও দাউদকান্দি উপজেলার হাসানপুর কলেজ পাড়ার ঢাকাগাঁও গ্রামের মো. ইউনুস মুন্সির ছেলে মো. রাজিব মুন্সি (২৭) এবং নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার নোয়াখোলা ২ নং ওয়ার্ডের নুর মোহাম্মদের ছেলে গোলাম মোস্তফা (২২)।

নিহতদের লাশ মালয়েশিয়ায় হাসপাতাল মর্গে রাখা আছে।

এছাড়া দুর্ঘটনায় চার বাংলাদেশি আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে তিনজন হলেন- শামীম আলী, মো. রাজিবুল ইসলাম ও মোহাম্মদ ইউনুস। তাদের পুত্রজায়া ও সারদাং হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

বাসটিতে ৪৩ জন বিদেশি শ্রমিক ও একজন চালক ছিলেন বলে এক কর্মকর্তা ইউএনবিকে জানিয়েছেন।

কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ওসিপিডি সহকারী কমিশনার জুলকিফলি আদামশাহর বরাত দিয়ে স্থানীয় গণমাধ্যম জানায়, বাসটি কর্মক্ষেত্রে যাওয়ার পথে ঘটনাস্থলে সড়কের পাশে নালায় পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে নয়জন নিহত হন। পরে মারা যান আরও পাঁচজন।

বাসের বিভিন্ন অংশ কেটে হতাহতদের উদ্ধারে উদ্ধারকারীদের ঘণ্টাখানেক সময় লেগে যায়।

দুর্ঘটনার কারণ তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ইউএনবি।