advertisement
আপনি দেখছেন

বিদেশে টাকা পাচারের দিক থেকে দক্ষিণ এশিয়ায় ভারতের পরেই বাংলাদেশের অবস্থান। ওয়াশিংটন ডিসিভিত্তিক সংস্থা গ্লোবাল ফাইনান্সিয়াল ইন্টেগ্রিটি (জিএফআই) এর প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, বিদেশে টাকা পাচারে ভারত দক্ষিণ এশিয়ায় প্রথম ও বাংলাদেশ দ্বিতীয়।

taka photos

জিএফআই-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৫ সালেই বাংলাদেশ থেকে চার প্রক্রিয়ায় ৫ দশমিক ৯ বিলিয়ন ডলার পাচার হয়েছে। বৈদেশিক বাণিজ্যে জালিয়াতির মাধ্যমে পাচার করা এ টাকা প্রায় ৫০ হাজার কোটি টাকার সমান।

তবে একই পদ্ধতিতে দেশে ঢুকেছে ২শ’ ৩৬ কোটি ডলারের সমপরিমাণ অর্থ। যা পাচার হওয়া টাকার তুলনায় খুবই স্বল্প।

জিএফআই জানায়, পাচার হওয়ার টাকার পরিমাণ উন্নত দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের মোট বাণিজ্যিক লেনদেনের ১৭ দশমিক ৫ শতাংশ। এই দিক দিয়ে
দক্ষিণ এশিয়ায় ভারত সবচেয়ে এগিয়ে।

অর্থ পাচারের বেলায় উন্নয়নশীল দেশগুলোই সবচেয়ে বেশি ভুক্তভোগী। জিএফআই’র প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০০৬ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত মোট ১৪৮টি উন্নয়নশীল দেশের অর্থ পাচার হয়েছে। আর এই পাচারকৃত অর্থের পরিমাণ ১ ট্রিলিয়ন ডলার।

২০১৫ সালের পরিসংখ্যানে পাচারকৃত টাকার পরিমাণের দিক থেকে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে মেক্সিকো। দেশটি থেকে ৪ হাজার ২৯০ কোটি ডলার পাচার হয়েছে। ৩ হাজার ৩৭০ কোটি পাচার করে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে মালয়েশিয়া। ভিয়েতনাম থেকে পাচার হয়েছে ২ হাজার ২৫০ কোটি।

এছাড়া থাইল্যান্ড থেকে ২ হাজার ৯০ কোটি, পানামা থেকে ১ হাজার ৮৩০ কোটি এবং ইন্দোনেশিয়া থেকে ১ হাজার ৫৪০ কোটি ডলার পাচার হয়েছে।