advertisement
আপনি দেখছেন

ফেনীর সোনাগাজীর বহুল আলোচিত ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে আলিম পরীক্ষার্থীকে কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় আরেক আলিম পরীক্ষার্থী শম্পাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে আটক করেছে পুলিশ। জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) এসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকার বলেন, 'মঙ্গলবার সকালে শম্পাকে আটক করা হয়েছে। মামলার তদন্তের স্বার্থে এ বিষয়ে কিছু বলা যাবে না।'

feni madrasa student

পুলিশ সুপার জানান, 'অগ্নিদগ্ধের সেই নির্মম ঘটনার সময় কেউ একজন 'শম্পা চল' এমন কথা বলেছেন। দগ্ধ ওই ছাত্রী চিকিৎসকদের এ কথা জানিয়েছেন। সেই সূত্র ধরেই পুলিশ শম্পাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। সে একই মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী।' উল্লেখ্য চাঞ্চল্যকরা এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১০ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পরীক্ষার জন্য নির্ধারিত কক্ষ থেকে ছাদে ডেকে নিয়ে কয়েকজন বোরখাপরা নারী পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যার উদ্দেশ্য গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় বলে অভিযোগ করেছে আহত শিক্ষার্থীর পরিবার। 

বর্তমানে শিক্ষার্থীটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন আছেন। প্রধানমন্ত্রী অবশ্য তাকে সিঙ্গাপুর নেয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন। শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলেই সম্ভবত তাকে বিদেশ নেয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার আলিম পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসায় যান ওই শিক্ষার্থী। সেখানেই তাকে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। এরপর থেকে শিক্ষার্থীর পরিবার দাবি করছে, পরীক্ষার হল থেকে বের হওয়ার পর বোরখা পরা চারজন অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মামলা তুলে নেয়ার চাপ দেয়। পরে মামলা তুলতে ওই শিক্ষার্থী অস্বীকৃতি জানালে তারা আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। এর আগে গত ২৭ মার্চ যৌন হয়রানির অভিযোগে ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে আটক করে পুলিশ। মামলাটি করেছিল শিক্ষার্থীর মা।

sheikh mujib 2020