আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 38 মিনিট আগে

বাংলাদেশি হজযাত্রীরা এখন থেকে সৌদি আরব রওনা হওয়ার আগে ঢাকার বিমানবন্দরেই ইমিগ্রেশনের কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন ধর্মবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আবদুল্লাহ। শুক্রবার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

hajj flight of biman

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশি হজযাত্রীরা বিমানবন্দরে অবতরণের পর কোনো ধরনের আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই উড়োজাহাজ থেকে সৌদি আরবে প্রবশে করতে পারবেন।’

ইমিগ্রেশনের বিষয়টি অনেক বড় দায়িত্ব। এটি হওয়ায় আগে ধারণা করা হয়েছিল যে এটি পালন কর্মকর্তাদের জন্য কঠিন হবে, উল্লেখ করে আবদুল্লাহ বলেন, ‘কিন্তু এ প্রক্রিয়াটি যথাযথভাবে সম্পন্ন করতে আমরা প্রয়োজনীয় সব উদ্যোগ নিয়েছি।’

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা এ সুযোগ গ্রহণে প্রস্তুত। এটি হজযাত্রীদের পুরো ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া সহজ করবে।’

আগে সৌদি আরবে অবতরণের পর ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হজযাত্রীদের উড়োজাহাজে বসে থাকতে হত। এতে অনেক সময় ছয় ঘণ্টাও অপেক্ষা করা লাগত।

‘মক্কা রুট ইনিশিয়েটিভ ফ্রেমওয়ার্ক’-এর আওতায় বাংলাদেশি হজযাত্রীদের সৌদি আরবের পরিবর্তে বাংলাদেশেই প্রি-এরাইভাল ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সম্পন্ন করার সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের লক্ষ্যে সৌদি আরবের একটি কারিগরি দল ২১ মার্চ বাংলাদেশ সফর করে, জানান প্রতিমন্ত্রী।

সেই সাথে সৌদি আরবের মহাপরিচালক (পাসপোর্ট) মেজর জেনারেল সোলাইমান আবদুল আজিজ ইয়াহ ইয়াহর নেতৃত্বে ১৪ সদস্যের একটি ঊর্ধ্বতন প্রতিনিধিদল ৯ এপ্রিল বাংলাদেশে এসে বিষয়টি নিয়ে বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, অভিবাসন ও কাস্টমস কর্তৃপক্ষ, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এবং সৌদি এয়ারলাইন্সের কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা করেন।

নতুন প্রক্রিয়ায় ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সহজভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে হজ ভিসার জন্য দূতাবাসে পাসপোর্ট জমা দেয়ার আগেই দেশের আট বিভাগে হজযাত্রীদের হাতের ১০ আঙ্গুলের ছাপ সংগ্রহ করা হবে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী। ইউএনবি।