advertisement
আপনি দেখছেন

পেঁয়াজের দামের আগুনের প্রভাব পড়েছে বীজের বাজারেও। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দু’সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজ বীজের দাম ১২শ টাকা বেড়ে ১৮০০ থেকে ২০০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সেই সঙ্গে বেড়েছে পেঁয়াজের গোটার দামও। এবার পেঁয়াজের বীজ ও কন্ধের দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে বলে জানান চাষিরা।

onion seedsপেঁয়াজ বীজ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার চাষিরা জানান, দু’সপ্তাহ আগেও পেঁয়াজের বীজ প্রতি কেজি ৭০০-৮০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এখন পেঁয়াজের বীজ শহরে ১৬০০ থেকে ১৭০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যা গ্রামের বাজারে বিক্রি হচ্ছে ২০০০ টাকায়। আর পেঁয়াজের গোটার (কন্ধ) সংকট দেখা দেয়ায় প্রতি কেজি ২৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গেলো বছর এক কেজি গোটার দাম ছিল ৩০-৩৫ টাকা।

গতকাল শুক্রবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের জগতবাজারের সবচেয়ে বড় দোকান মেসার্স বিছমিল্লাহ বীজ ভান্ডারের মালিক মো. জীবন মিয়া ও হেলিম মিয়া জানান, গত দু’সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজের বীজের দাম দ্বিগুণেরও বেশি বেড়েছে। ৭০০-৮০০ টাকার প্রতি কেজি বীজ গতকাল ১৫০০-১৬০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, তাদের দুই ধরনের বীজ রয়েছে। যার লাল তীরের বীজের কোম্পানি রেট ১৬০০-১৮০০ টাকা আর মাসুদ সিড, মোমিন সিড ও ইউনাইটেড সিডের বীজ ১২০০-১৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বীজের দাম বেশি এবং চাহিদা থাকায় কোম্পানিগুলো ব্যবসায়ীদের কমিশন দেয়া বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে গ্রাহক পর্যায়ে বেশি দামে বিক্রি করছের ব্যবসায়ীরা।

এদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহর থেকে ১২-১৩ কিলোমিটার দূরের একটি গ্রামের হাটে গিয়ে বৃহস্পতিবার দেখা গেছে, পেঁয়াজের বীজ ২ হাজার টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। বিক্রেতারা বলছেন, পাইকারি ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে বেশি দামে কেনায় তারাও বেশি দামে বিক্রি করছেন।

অন্যদিকে বৃহস্পতি ও রোববার নবীনগরের বড়াইলের হাটে গিয়ে গোটা পেঁয়াজ পাওয়া যায়নি। শিরিনা বেগম নামে এক গৃহবধূ জানান, ২৫০ টাকায় আধা কেজি গোটা পেঁয়াজ কিনেছেন তিনি। হুমায়ুন মিয়া নামের আরেক চাষি জানান, ক’দিন আগে ২৫০ টাকা দরে দু-কেজি গোটা পেঁয়াজ কিনে লাগিয়েছেন তিনি। এখন ২৬০ টাকা দরে গোটা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে।