advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 14 মিনিট আগে

বিদেশ থেকে বিমানে উড়িয়ে আনার পরও ঝাঁজ কমেনি পেঁয়াজের। বরং গত কয়েকদিনে দেশি ও বিদেশি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে কেজি প্রতি ১০ থেকে ৪০ টাকা।

onion history createপেঁয়াজ

রোববার রাজধানী বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, দেশি পেঁয়াজ কেজিতে ৩০ থেকে ৪০ টাকা বেড়ে বর্তমানে ২২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর ক্রেতারা পছন্দ করতেন না বলে যে পেঁয়াজ এতদিন ব্যবসায়ীরা আমদানি করতেন না সেই মিশর, চীন, তুরস্কের পেঁয়াজ কেজিতে ১০ থেকে ১৫ টাকা বেড়ে বর্তমানে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

সরকারি বিপণন সংস্থা ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) তথ্যানুযায়ী, গত বছর নভেম্বরে খুচরা বাজারে প্রকারভেদে পেঁয়াজের কেজি ছিল ২৫ থেকে ৪০ টাকা। কিন্তু চলতি বছর একই সময় সেই পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৫০ থেকে ২৫০ টাকা প্রতিকেজি। এ হিসাবে গত এক বছরে দেশি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে প্রায় সাড়ে পাঁচ গুন।

পাঁচ সদস্যের একটি পরিবারের রান্নায় প্রতিমাসে গড়ে পাঁচ কেজি পেঁয়াজের প্রয়োজন হয়। খুচরা বাজার থেকে এই মুহূর্তে পাঁচ কেজি পেঁয়াজ কিনতে খরচ পড়বে এক হাজার ১০০ টাকা। যা দিয়ে মধ্যবিত্ত একটি পরিবারের মোটামুটি এক মাসের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা যায়, দুই চুলার গ্যাস বিল পরিশোধ করে ১২৫ টাকা জমানো যায়।

লাগামহীন ঘোড়ার মতো শুধু পেঁয়াজের দামই ছুটছে না, চলতি মাসে রাজধানীতে দাম বেড়েছে চাল, সয়াবিন তেল, আটা, ময়দা ও ডিমের। চিকন চাল কেজিতে ৫-৭ টাকা, মাঝারি চাল ৩-৪ টাকা, মোটা চাল ২ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম বেড়েছে ৩-৪ টাকা। আটা কেজিতে ১-২ টাকা এবং ময়দা ৮ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে খুচরা বাজারে ডিমের ডজন ১০০ থেকে ১০৫ টাকা।

তাছাড়া সম্প্রতি মূল্যবৃদ্ধির গুজবে ৩৫ টাকার লবণ কয়েকগুন দামে বিক্রি করেন অনেক বিক্রেতা।

মিরপুর শেওড়াপাড়ার বাসিন্দা সামসুল ইসলাম বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় কোন পণ্যের দামই নাগালের মধ্যে নেই। শুধু পেঁয়াজ নয়, শীতকালীন শাক-সবজি থেকে শুরু করে মাছ মাংস চাল-ডাল সবকিছুর দাম আকাশ ছোঁয়া। গরুর মাংসের দাম সেই কবে ৫৫০ টাকা হয়েছিল, এরপর আর কমেনি। ভালো মাছের দাম কেজি ৬০০ টাকা। আর শীতকালীন কোন সবজির দাম ৬০ টাকার নিচে নেই।

উল্লেখ্য, গত ২৮ সেপ্টেম্বর ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করার পর দেশের বাজারে হু হু করে বাড়তে থাকে পেঁয়াজের দাম। এক পর্যায়ে দাম ২৫০ টাকায় পৌঁছালে তা ক্রেতা সাধারণের নাগালের বাহিরে চলে যায়। পরবর্তীতে সরকারের অনুমতিতে আমদানিকারক কয়েকটি প্রতিষ্ঠান বিমান এবং জাহাজের মাধ্যমে বিদেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করে।

বিমানে করে পেঁয়াজ উড়িয়ে নিয়ে আসার ফলে বাজারে সরবরাহ বাড়বে এবং এর দাম কমবে এমটাই আশা ছিল জনমনে। বিপুল পরিমাণ পেঁয়াজের আমদানির খবরে বাজারে দামও কমেছিল পণ্যটির। কিন্তু গত বুধবার থেকে ফের বাড়তে শুরু করে দাম।

sheikh mujib 2020