advertisement
আপনি দেখছেন

বায়ুদূষণের মাত্রা এতোটাই বেড়েছে যে, বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত নগরীর তালিকায় শীর্ষে অবস্থান করছে ঢাকা। রাজধানীতে চলমান বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য সৃষ্ট খোঁড়াখুঁড়ির কারণেই এ অবস্থা, বলছে পরিবেশ অধিদপ্তর। এরই প্রেক্ষিতে বুধবার ঢাকা মেট্রোরেল ও ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

air pullosion fineবায়ুদূষণ সৃষ্টির দায়ে মেট্রোরেল ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

অভিযানে বায়ুদূষণ সৃষ্টির দায়ে রাজধানীর আগারগাঁও এবং বনানীতে চলমান এই দুই উন্নয়ন প্রকল্পের দুই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে  মোট তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এর মধ্যে মেট্রোরেলের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে একলাখ টাকা এবং এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে দুই লাখ টাকা জারিমানা করা হয়।

আগারগাঁওয়ের অভিযানে নেতৃত্ব দেন পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তামজিদ হোসেন এবং বনানীতে মাকছুদুল ইসলাম। 

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তামজিদ হোসেন বলেন, মেট্রোরেল ও এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্প এলাকার বায়ুর গুণগত মান পরীক্ষা করে দূষণের প্রমাণ পাওয়া যায়। দেখা যায় আগারগাঁও এলাকায় বায়ুর এসপিএম ৮২০, মিরপুর দশ নম্বর গোলচত্বরে ৭৬৪ ও বনানী মোড়ে ৬০৫। 

এদিকে রাজধানী ঢাকা ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকাগুলোতে বায়ুদূষণ রোধে অভিন্ন নীতিমালা প্রণয়নের জন্য কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী এক মাসের মধ্যে কমিটিকে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। এছাড়া রাস্তা ও ফুটপাতে থাকা ধুলোবালি, ময়লা ও আবর্জনা অপসারণ করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

পাশাপাশি যেসব এলাকায় উন্নয়ন প্রকল্প ও রাস্তা সংস্কারের কাজ চলছে, সেখানে কাজের এরিয়া ঘেরাও করা এবং দৈনিক দুইবার করে পানি ছেটাতে সংলিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।